• বুধবার   ০৫ অক্টোবর ২০২২ ||

  • আশ্বিন ১৯ ১৪২৯

  • || ০৭ রবিউল আউয়াল ১৪৪৪

Find us in facebook
সর্বশেষ:
সমৃদ্ধ দেশ গড়তে কন্যা শিশুদের যথাযথ শিক্ষা নিশ্চিত করা অপরিহার্য: প্রধানমন্ত্রী বিএনপির মানবাধিকার লঙ্ঘনের ইতিহাস পুরনো: সুলতানা কামাল নির্বাচন সামনে রেখে উসকানিমূলক তৎপরতা চলছে: ওবায়দুল কাদের করতোয়ায় নৌকাডুবি: ৮ কারণ দেখিয়ে প্রতিবেদন দিল তদন্ত কমিটি হাতীবান্ধায় নানার বাড়ি বেড়াতে এসে প্রাণ গেল অপূর্বের

তারাগঞ্জে স্বামীর অফিসে ঢুকে স্ত্রীর আত্মহত্যা 

– দৈনিক রংপুর নিউজ ডেস্ক –

প্রকাশিত: ৯ জুন ২০২১  

Find us in facebook

Find us in facebook

স্বামীর অফিসে গিয়ে খুঁজে না পেয়ে সেখানেই আত্মহত্যা করেছেন স্ত্রী। পুলিশ তার ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠিয়েছে। বুধবার দুপুরে রংপুরের তারাগঞ্জ উপজেলার দামোদরপুরে এনজিও ব্র্যাকের অফিসে এ ঘটনা ঘটে। নিহত হাফিজা বেগম ব্র্যাকের দামোদরপুর শাখার প্রজেক্ট অফিসার নূর আলমের স্ত্রী।

জানা গেছে, হাফিজা বেগমের স্বামীকে খুঁজতে ব্র্যাকের তারাগঞ্জ উপজেলার বুড়িরহাট বাজার শাখায় যান। সেখানে স্বামীকে না পেয়ে গেস্ট রুমে ঢুকে ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যা করেন। খবর পেয়ে পুলিশ গিয়ে ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার করে।

নিহতের পরিবার জানিয়েছে, ২০১০ সালে দিনাজপুরের বোচাগঞ্জ উপজেলার বড় পরমেশ্বরপুরের হাফিজার উদ্দিনের ছেলে নূর আলমের সঙ্গে বিয়ে হয় চিরিরবন্দর উপজেলার দৌলতপুরের হাফিজা বেগমের। বিয়ের পর থেকেই তাদের সংসারে অশান্তি বিরাজ করছিল। তারা ছয় মাস ধরে রংপুরের তারাগঞ্জের কুর্শা ইউনিয়নের বসপাড়া গ্রামের একটি বাসায় ভাড়া থাকতেন।

তারাগঞ্জ থানার ওসি ফারুক আহম্মদ জানান, শুক্রবার স্বামী-স্ত্রীর মধ্যে ঝগড়া হলে হাফিজা অভিমান করে বাবার বাড়িতে চলে যান। মঙ্গলবার রাতে তারাগঞ্জের বাসায় ফিরে আসেন। বুধবার সকালে স্বামীর খোঁজে ব্র্যাকের দামোদরপুর শাখায় যান তিনি। স্বামীকে অফিসে না পেয়ে সেখানকার গ্রেস্ট রুমে ঢুকে ফ্যানের সঙ্গে ওড়না পেঁচিয়ে আত্মহত্যা করেন।

ওসি আরো জানান, নিহতের স্বামী নূর আলম পরকীয়ায় জড়িয়ে ছিলেন বলে তথ্য পাওয়া গেছে। এ নিয়েই স্বামী-স্ত্রীর মধ্যে অশান্তি চলছিল। ধারণা করা হচ্ছে- পরকীয়ার জেরেই হাফিজা বেগম আত্মহত্যা করতে পারেন।

Place your advertisement here
Place your advertisement here