• মঙ্গলবার   ২৯ নভেম্বর ২০২২ ||

  • অগ্রাহায়ণ ১৫ ১৪২৯

  • || ০৪ জমাদিউল আউয়াল ১৪৪৪

Find us in facebook
সর্বশেষ:
দশ টাকায় টিকিট কেটে চক্ষু পরীক্ষা করালেন প্রধানমন্ত্রী দেশের মানুষ দুর্নীতিবাজদের ফের ক্ষমতায় দেখতে চায় না: হানিফ সরকারি কর্মচারীদের পাঁচ বছর পরপর সম্পদের বিবরণী জমা দিতে হবে না আগামী অক্টোবরে চালু হবে থার্ড টার্মিনাল ব্যাংক খাতের পরিস্থিতি জানানোর নির্দেশ প্রধানমন্ত্রীর

জাতিসংঘ তো ইদানিং অনেক দুর্বল হয়ে গেছে: পররাষ্ট্রমন্ত্রী

– দৈনিক রংপুর নিউজ ডেস্ক –

প্রকাশিত: ৪ অক্টোবর ২০২২  

Find us in facebook

Find us in facebook

মিয়ানমারের অভ্যন্তরীণ সীমান্তে চলমান সংকটসহ রোহিঙ্গা সমস্যা সমাধানে বাংলাদেশের জাতিসংঘে যাওয়ার সুযোগ রয়েছে। তবে সংস্থাটি ইদানিং অনেক দুর্বল হয়ে গেছে বলে মন্তব্য করেছেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. এ কে আব্দুল মোমেন।

যুক্তরাষ্ট্র-যুক্তরাজ্য ও জাপান সফর শেষে মঙ্গলবার (৪ অক্টোবর) পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে সাংবাদিকদের মুখোমুখি হয়ে এমন মন্তব্য করেন মন্ত্রী।  

সাংবাদিকরা মন্ত্রীর কাছে জানতে চান- রোহিঙ্গা ইস্যুতে বাংলাদেশ জাতিসংঘে যাবে কি না। জবাবে পররাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, সেটার সব স্কোপই আছে। জাতিসংঘে আগে আমরা গিয়েছি। কিন্তু সেখানে যেমন সিকিউরিটি কাউন্সিল…। জাতিসংঘ তো ইদানিং অনেক দুর্বল হয়ে গেছে। কারণ বিভিন্ন দেশে তারা সুবিধা করতে পারছে না। যুদ্ধই থামাতে পারছে না। 

এর আগে, গত মাসের মাঝামাঝি সময়ে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান বলেছিলেন, মিয়ানমারের সঙ্গে বাংলাদেশ যুদ্ধ চায় না। বাংলাদেশ আলোচনার মাধ্যমেই সমস্যার সমাধান করতে চায়। প্রয়োজনে জাতিসংঘে যাবে বাংলাদেশ। 

জাতিসংঘের মানবাধিকার পরিষদদের রোহিঙ্গা ইস্যুতে বাংলাদেশ ভালো সাড়া পেয়েছে জানিয়ে ড. মোমেন বলেন, সেখানে (জাতিসংঘে) খুব ভালো সাড়া পেয়েছি। রোহিঙ্গা ইস্যুতে আমাদের একটি ভয় ছিল, ইউক্রেনের রিফিউজি নিয়ে তাদের আগ্রহ বেশি। সেজন্য আমরা রোহিঙ্গা ইস্যু নিয়ে আলোচনায় বসি। 

তিনি বলেন, আলোচনায় বড় বড় সব দেশ এসেছে। সৌদি আরবের পররাষ্ট্রমন্ত্রী, তুর্কির পররাষ্ট্রমন্ত্রী ছিলেন। আমেরিকা সেখানে রোহিঙ্গাদের জন্য তহবিল ঘোষণা করেছে। যুক্তরাজ্য ছিল, সবাই ছিল। ওটা ভালো ইভেন্ট ছিল। সবাই আমাদের সঙ্গে একমত, রোহিঙ্গা ইস্যু সিরিয়াস ইস্যু এবং এর সলিউশন দরকার, প্রত্যাবাসন দরকার, এটি সবাই উপলব্ধি করেছে। 

সীমান্তে পরিস্থিতি নিয়ে বাংলাদেশের করণীয় প্রসঙ্গে মন্ত্রী বলেন, এখন যেটা হচ্ছে, মিয়ানমারে হচ্ছে। এটি আমাদের এখানে হচ্ছে না। আমরা ঠান্ডা মাথায় সামলাবো। আমাদের যা করণীয়, তা আমরা করছি। 

মিয়ানমারের পক্ষ থেকে উসকানি দেওয়া হলে বাংলাদেশ তাদের ফাঁদে পা দেবে নাতো-এমন প্রশ্নের জবাবে মোমেন বলেন, আমরা উসকানিতে পা দেব না। 

গত সপ্তাহে চীনের রাষ্ট্রদূতকে নিয়ে পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের সভা প্রসঙ্গে ড. মোমেন বলেন, চীন সবসময় আমাদের ভালো বন্ধু। কিন্তু খুব সুবিধা হয়নি এখনো। তাদের যথেষ্ট আগ্রহ আছে এবং আন্তরিকতাও আছে। 

গত বৃহস্পতিবার সেন্টার ফর গভর্ন্যান্স স্টাডিজ আয়োজিত ‘মিট দ্য অ্যাম্বাসেডর’ অনুষ্ঠানে র‍্যাবের নিষেধাজ্ঞা প্রসঙ্গে ঢাকায় নিযুক্ত মার্কিন রাষ্ট্রদূত পিটার হাস জানান, র‌্যাবের নিষেধাজ্ঞার বিষয়ে অবস্থানের কোনো পরিবর্তন হয়নি। 

র‌্যাবের ওপর থেকে নিষেধাজ্ঞা তোলার বিষয়ে যুক্তরাষ্ট্রের কর্মকর্তাদের সঙ্গে আলোচনার বিষয়ে পররাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, রাষ্ট্রদূত যা বলেছেন, এটা তার বক্তব্য। আমরা আমাদের ইস্যুগুলো তুলে ধরেছি। আমরা সব জায়গায় বলেছি। এটা একটা প্রসেস। এটি আমরা সবসময় তুলে ধরি।

Place your advertisement here
Place your advertisement here