• শুক্রবার   ২৭ মে ২০২২ ||

  • জ্যৈষ্ঠ ১৩ ১৪২৯

  • || ২৪ শাওয়াল ১৪৪৩

Find us in facebook
সর্বশেষ:
খাদ্য নিরাপত্তা নিশ্চিত করে অর্থনীতিকে গতিশীল রেখেছে সরকার- প্রধানমন্ত্রী মরণোত্তর দ্যাগ হ্যামারশোল্ড মেডেল পেলেন ২ বাংলাদেশি নীলফামারীতে দুস্থ ও মেধাবী শিক্ষার্থীদের মাঝে বাইসাইকেল বিতরণ লিচুকে ঘিরে দিনাজপুরে দৈনিক ১০ কোটি টাকার লেনদেন ‘গুপ্তধন পেতে জিনের বাদশাহকে ৮ লাখ টাকা দিয়েছি’

আইপিএলে যত হ্যাটট্রিক

– দৈনিক রংপুর নিউজ ডেস্ক –

প্রকাশিত: ২২ এপ্রিল ২০২২  

Find us in facebook

Find us in facebook

ইন্ডিয়ান প্রিমিয়ার লিগের এবারের আসরে ৩০তম ম্যাচে কলকাতা নাইট রাইডার্সের বিপক্ষে হ্যাটট্রিক করেছেন রাজস্থান রয়্যালসের যুবেন্দ্র চাহাল। যা এই মৌসুমের প্রথম ও আইপিএলের ইতিহাসের ২১তম হ্যাটট্রিক।

এর আগের ১৪টি মৌসুমে আরো ২০টি হ্যাটট্রিক হয়েছে। সবমিলিয়ে ১৫টি হ্যাটট্রিক করেছেন ভারতীয় বোলাররা। বাকি ছয়টি হ্যাটট্রিকের কৃতিত্ব বিদেশি বোলারদের।
 
আইপিএলের ইতিহাসে প্রথম হ্যাটট্রিক করেছিলেন লক্ষ্মীপতি বালাজি। ২০০৮ সালে চেন্নাই সুপার কিংসের হয়ে পাঞ্জাব কিংসের (তৎকালীর কিংস ইলেভেন পাঞ্জাব) বিপক্ষে পর পর তিন বলে তিন উইকেট নেন তিনি। ইরফান পাঠান, পীযূষ চাওলা ও বিক্রম রাজবীর সিংহকে আউট করেন বালাজি।

আইপিএলে মোট তিনটি হ্যাটট্রিক করেছেন অমিত মিশ্র। তার মধ্যে প্রথমটি এসেছিল ২০০৮ সালে। দিল্লি ক্যাপিটালসের (তৎকালীন দিল্লি ডেয়ারডেভিলস) হয়ে পর পর তিন বলে ডেকান চার্জার্সের রবি তেজা, প্রজ্ঞান ওঝা ও রুদ্রপ্রতাপ সিংহকে আউট করেন তিনি।

সেই বছরই চেন্নাই সুপার কিংসের মাখায়া এনটিনি কলকাতা নাইট রাইডার্সের বিপক্ষে হ্যাটট্রিক করেন। সৌরভ গাঙ্গুলি, দেবব্রত দাস ও ডেভিড হাসি তার শিকার হন।

২০০৯ সালের প্রথম হ্যাটট্রিক করেন যুবরাজ সিংহ। পাঞ্জাব কিংসের হয়ে রয়্যাল চ্যালেঞ্জার্স ব্যাঙ্গালুরুর রবিন উথাপ্পা, জ্যাক কালিস ও মার্ক বাউচারকে আউট করে হ্যাটট্রিক পূর্ণ করেন তিনি।

২০০৯ সালে হ্যাটট্রিক করেছিলেন রোহিত শর্মা। সে সময় ডেকান চার্জার্সের হয়ে খেলতেন রোহিত। মুম্বাই ইন্ডিয়ান্সের অভিষেক নায়ার, হরভজন সিংহ ও জেপি ডুমিনিকে আউট করেন রোহিত।

সে বছর আরো একটি হ্যাটট্রিক করেন যুবরাজ। ডেকান চার্জার্সের বিপক্ষে হার্শেল গিবস, অ্যান্ড্রু সাইমন্ডস ও ভেনু গোপাল রাওকে পর পর তিন বলে সাজঘরে ফেরান যুবি।

২০১০ সালের প্রথম হ্যাটট্রিক করেন প্রবীণ কুমার। ব্যাঙ্গালুরুর হয়ে রাজস্থান রয়্যালসের ড্যামিয়েন মার্টিন, সুমিত নারওয়াল ও পরশ ডোগরাকে আউট করেন তিনি। সে বছর ওই একটিই হ্যাটট্রিক হয়েছিল।

২০১১ সালে অমিত মিশ্র আরো একটি হ্যাটট্রিক করেন। ডেকান চার্জার্সের হয়ে খেলার সময় পাঞ্জাবের রায়ান ম্যাকলারেন, মনদীপ সিংহ ও রায়ান হ্যারিসকে আউট করেন তিনি। সে বছরও একটিই হ্যাটট্রিক হয়েছিল।

২০১২ সালে রাজস্থান রয়্যালসের অজিত চাণ্ডিলা হ্যাটট্রিক করেন। তিনিই প্রথম ভারতীয় যিনি জাতীয় দলে সুযোগ পাওয়ার আগে আইপিএলে হ্যাটট্রিক করেছেন। পুনে ওয়ারিয়র্সের জেসি রাইডার, সৌরভ গাঙ্গুলি ও রবিন উথাপ্পাকে আউট করেন অজিত। সে বছরও ওই একটিই হ্যাটট্রিক হয়।

২০১৩ সালে প্রথম হ্যাটট্রিক করেন সুনীল নারাইন। কেকেআর-এর এই স্পিনার পাঞ্জাবের ডেভিড হাসি, আজহার মাহমুদ ও গুরকিরাত সিংহকে আউট করেন।

সে বছর অমিত মিশ্র নিজের তৃতীয় হ্যাটট্রিক করেন। সানরাইজার্স হায়দরাবাদের হয়ে খেলার সময় পুনে ওয়ারিয়র্সের ভুবনেশ্বর কুমার, রাহুল শর্মা ও অশোক ডিন্ডাকে ফেরান তিনি।

২০১৪ সালে হ্যাটট্রিক নেন প্রবীণ তাম্বে। তিনি দ্বিতীয় ক্রিকেটার যিনি জাতীয় দলে সুযোগ পাওয়ার আগে হ্যাটট্রিক করেন। রাজস্থানের হয়ে কলকাতার বিপক্ষে মণীশ পাণ্ডে, ইউসুফ পাঠান ও রায়ান টেন ডেসকাটেকে আউট করেন প্রবীণ।

সে বছর রাজস্থানের হয়ে হ্যাটট্রিক করেন শেন ওয়াটসনও। সানরাইজার্স হায়দরাবাদের শিখর ধাওয়ান, ময়জেস হেনরিকস ও করন শর্মাকে আউট করেন তিনি।

২০১৫ সালে একটিও হ্যাটট্রিক হয়নি। ২০১৬ সালে পাঞ্জাবের আক্সার প্যাটেল গুজরাট লায়ন্সের দীনেশ কার্তিক, ডোয়েন ব্র্যাভো ও রবীন্দ্র জাদেজাকে পর পর তিন বলে আউট করেন। সে বছর ওই একটিই হ্যাটট্রিক হয়েছিল।

২০১৭ সালে ব্যাঙ্গালুরুর হয়ে স্যামুয়েল বদ্রি মুম্বাইয়ের পার্থিব প্যাটেল, মিচেল ম্যাকগ্লেনাগেন ও রোহিত শর্মাকে আউট করে নিজের হ্যাটট্রিক পূর্ণ করেন।

সে বছর গুজরাট লায়ন্সের অ্যান্ড্রু টাই রাইজিং পুনে সুপার জায়ান্টসের বিপক্ষে হ্যাটট্রিক করেন। পর পর তিন বলে অঙ্কিত শর্মা, মনোজ তিওয়ারি ও শার্দুল ঠাকুরকে আউট করেন তিনি।

২০১৭ সালেই রাইজিং পুনে সুপার জায়ান্টসের জয়দেব উনাদকাট হায়দরাবাদের বিপক্ষে হ্যাটট্রিক করেন। বিপুল শর্মা, রশিদ খান ও ভুবনেশ্বর কুমারকে সাজঘরে ফেরত পাঠান তিনি।

স্যাম কারেন ২০১৯ সালে পাঞ্জাবের হয়ে হ্যাটট্রিক করেন। দিল্লি ক্যাপিটালসের হার্শাল প্যাটেল, কাগিসো রাবাদা ও সন্দীপ লামিচানেকে আউট করে এই কীর্তি গড়েন তিনি।

সে বছর হ্যাটট্রিক করেন রাজস্থানের শ্রেয়স গোপালও। ব্যাঙ্গালুরুর বিরাট কোহলী, এবি ডি ভিলিয়ার্স ও মার্কাস স্টয়নিসকে আউট করে নিজের হ্যাটট্রিক পূর্ণ করেন এই বোলার।

২০২০ সালে একটিও হ্যাটট্রিক হয়নি। ২০২১ সালে আরসিবি-র হয়ে পর পর তিন বলে তিন উইকেট নেন হার্শাল প্যাটেল। মুম্বাইয়ের হার্দিক পান্ডিয়া, কায়রন পোলার্ড ও রাহুল চাহারকে আউট করেন তিনি।

তালিকায় সর্বশেষ সংযোজন রাজস্থানের যুবেন্দ্র চাহাল। কলকাতার শ্রেয়স আয়ার, শিবম মাভি ও প্যাট কামিন্সকে আউট করেন তিনি। ওই এক ওভারে মোট চার উইকেট নেন চাহাল।

Place your advertisement here
Place your advertisement here