• বুধবার   ২২ সেপ্টেম্বর ২০২১ ||

  • আশ্বিন ৭ ১৪২৮

  • || ১৩ সফর ১৪৪৩

Find us in facebook
সর্বশেষ:
জলবায়ু ইস্যুতে বিশ্বনেতাদের জোরালো পদক্ষেপ চান প্রধানমন্ত্রী লিঙ্গ সমতা নিশ্চিতে বিশ্বনেতাদের সামনে প্রধানমন্ত্রীর ৩ প্রস্তাব পীরগঞ্জে পর্নোগ্রাফির আলামতসহ ওয়ারেন্টভুক্ত ৮ আসামি গ্রেপ্তার লাশের পকেটে চিরকুট, ছিল মোবাইল নম্বর রংপুরে কিস্তির চাপে ব্যবসায়ীর আত্মহত্যা

রাজীবপুরে শিক্ষার্থীদের উদ্যোগে বাঁশের সাঁকো নির্মাণ

– দৈনিক রংপুর নিউজ ডেস্ক –

প্রকাশিত: ১৫ সেপ্টেম্বর ২০২১  

Find us in facebook

Find us in facebook

রাজীবপুরে স্বেচ্ছাশ্রমে তৈরি এই সাঁকো নির্মাণে স্থানীয়রা কেউ বাঁশ, কেউ পেরেক, কেউবা শারীরিক শ্রম দিয়ে তরুণদের সহযোগিতা করেছেন। তরুণ শিক্ষার্থী ও এলাকাবাসীর চেষ্টায় ১৫ ফুট দৈর্ঘ্য বিশিষ্ট বাঁশের সাঁকো নির্মাণ সম্পন্ন হয়েছে। এতে যানবাহন ও মানুষ চলাচলে স্বস্তি মিলছে। যাতায়াতে দুর্ভোগ কমেছে প্রায় ১৫ হাজার মানুষের।

স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, রাজীবপুর উপজেলা শহরের যোগাযোগের গুরুত্বপূর্ণ এই সড়কটি দিয়ে জোয়ানী পাড়া, পাটাধোয়া পাড়াসহ মোহনগঞ্জ ইউনিয়নে মানুষজন চলাচল করে। এছাড়াও রাজীবপুর মডেল পাইলট উচ্চ বিদ্যালয়, রাজীবপুর সরকারি ডিগ্রি কলেজের শিক্ষার্থীরা এই পথে স্কুল কলেজে যাতায়াত করে। সম্প্রতি স্কুল কলেজ চালু হওয়ায় শিক্ষার্থীরা বিপাকে পড়েছিল ওই ভাঙ্গা সড়কে চলাচলের সময়।

এলাকাবাসী ও শিক্ষার্থীদের ভোগান্তি দেখে জোয়ানী পাড়া গ্রামের কলেজ শিক্ষার্থী সোহেল রানা (২২) সড়কের ওই ভাঙ্গা অংশে সাঁকো নির্মাণের চিন্তা করে স্থানীয় আরও কয়েকজন শিক্ষার্থীর সাথে কথা বলে। তার প্রস্তাবে সাড়া দেয় রাসেল (১৮), আব্দুল মান্নান (২০), ইউসুফ (১৫) সহ আরও কয়েকজন। পরে ওই গ্রামের কৃষক আমিনুল ইসলাম ও আব্দুল লতিফের সহায়তায় শুরু হয় বিভিন্ন বাড়ি থেকে বাঁশ সংগ্রহ।

বাঁশ সংগ্রহ শেষ হলে শুরু হয় সাঁকো নির্মাণ কাজ। তরুণদের দেখে উদ্বুদ্ধ হয়ে এলাকাবাসীও সহযোগিতা শুরু করে নির্মাণ কাজের। প্রায় ৩০ জনের অক্লান্ত প্রচেষ্টায় নির্মাণ হয় ১৫ ফুট বাঁশের সাঁকো।

সাঁকো নির্মাণ হওয়ায় খুব খুশি জোয়ানী পাড়া গ্রামের নুরুন্নবী (৫৫)। তিনি বলেন, সড়কটা ভাইঙ্গা আমাগো চলাচলের খুব অসুবিধা হইছিলো। গ্রামের যুবকরা বাঁশের ব্রিজ বানাইছে এহন একটু সুবিধা হইলো চলাফেরায়। দ্রুত এই সড়কটি স্থায়ী সংস্কারের দাবি জানিয়েছেন তিনি।

সড়কের ভাঙ্গা অংশে সাঁকো নির্মাণের ফলে রিক্সা, ভ্যান, সাইকেল ও মোটরসাইকেল চলাচল করতে পারছে এখন। গত কয়েক সপ্তাহ থেকে যানবাহন চলাচল বন্ধ ছিলো এই সড়কে।পথচারীরা পানি মাড়িয়ে চলাচল করতো।

সাঁকো নির্মাণের মূল উদ্যোক্তা সোহেল রানার সাথে কথা হলে তিনি বলেন, মানুষের চলাচলের দুর্ভোগ লাঘবে আমরা তরুণরা এই উদ্যোগ গ্রহণ করি। এতে গ্রামের অনেকেই সহযোগিতা করেছেন।সকলের পরিশ্রমের ফলেই আজ এই সড়কের ভাঙ্গা অংশে সাঁকো নির্মাণ হয়েছে। এতে শিক্ষার্থীসহ নানা পেশার মানুষের দুর্ভোগ লাঘব হয়েছে। স্থানীয় প্রশাসনের কাছে দ্রুত সড়কের ওই ভাঙ্গা অংশ মেরামত করার দাবিও জানিয়েছেন তিনি।

মোহনগঞ্জ ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান আনোয়ার হোসেন জানান, ওখানকার স্থানীয় কিছু ছাত্র ও এলাকাবাসী মিলে একটি অস্থায়ী বাঁশের সাঁকো নির্মাণ করেছে। এতে চলাচলে সাময়িক সুবিধা হয়েছে। সড়কটির ক্ষতিগ্রস্থ অংশ মেরামতের জন্য উপজেলা প্রশাসনের নিকট আবেদন জানানো হয়েছে বলেও তিনি নিশ্চিত করেছেন।

Place your advertisement here
Place your advertisement here