• শুক্রবার   ১২ আগস্ট ২০২২ ||

  • শ্রাবণ ২৮ ১৪২৯

  • || ১৩ মুহররম ১৪৪৪

Find us in facebook
সর্বশেষ:
ছুটির দিনে গ্রামের বাড়ি গোপালগঞ্জের টুঙ্গিপাড়ায় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা জাতীয় শোক দিবসে নিশ্ছিদ্র নিরাপত্তা নিশ্চিত করা হবে: আইজিপি বাংলাদেশে প্রয়োজনীয় পরিমাণ গম রফতানির আগ্রহ প্রকাশ করেছে রাশিয়া বিদ্যুৎ সাশ্রয়ের লক্ষ্যে শিল্প-কারখানায় এলাকাভেদে সাপ্তাহিক ছুটি বাংলাদেশে বিনিয়োগে আগ্রহী মার্কিন কোম্পানি: খালিদ মাহমুদ চৌধুরী

শ্যালকের প্রেমিকাকে ধর্ষণচেষ্টা, দুলাভাই গ্রেফতার

– দৈনিক রংপুর নিউজ ডেস্ক –

প্রকাশিত: ৫ মে ২০২২  

Find us in facebook

Find us in facebook

মুঠোফোনে পরিচয়ের সূত্র ধরে প্রেমের টানে কুড়িগ্রামের কচাকাটা থেকে রংপুরের বদরগঞ্জে এসে প্রেমিকের দুলাভাইয়ের ধর্ষণ চেষ্টার শিকার হয়েছে সপ্তম শ্রেণির এক ছাত্রী। পরে এলাকাবাসী তাকে উদ্ধার করে পুলিশে সোপর্দ করে। এ ঘটনায় মামলা হলে শ্যালক ও দুলাভাইকে গ্রেফতার করে কারাগারে পাঠায় পুলিশ।

মামলা সূত্রে জানা যায়, মাস চারেক আগে মুঠোফোনে পরিচয়ের সূত্র ধরে ওই ছাত্রীর সঙ্গে একই থানার নারায়ণপুর ইউনিয়নের বালারহাট গ্রামের শহিদুল ইসলামের (৩২) প্রেমের সম্পর্ক গড়ে ওঠে। শহিদুল বিবাহিত এবং দুই সন্তানের জনক হলেও বিষয়টি গোপন রেখে মেয়েটিকে ফুঁসলিয়ে গত মঙ্গলবার (৩ মে) সন্ধ্যায় রংপুরের বদরগঞ্জ উপজেলার রামনাথপুর ইউনিয়নে ভগ্নিপতি আরিফুল ইসলামের বাড়িতে নিয়ে যান। পরে আরিফুল ওই ছাত্রীকে তার বাসায় রাখলেও শ্যালক শহিদুলকে কৌশলে অন্য জায়গায় পাঠিয়ে দেন। এরপর গভীর রাতে শহিদুলের কাছে নিয়ে যাওয়ার কথা বলে ওই শিক্ষার্থীকে বাড়ি থেকে বের করে পার্শ্ববর্তী জেলেপাড়ার একটি ভুট্টাক্ষেতে নিয়ে ধর্ষণের চেষ্টা চালান আরিফুল। এসময় ওই ছাত্রী চিৎকার দিলে জেলেপাড়ার লোকজন তাকে উদ্ধার করে। তবে আরিফুল পালিয়ে যান।

পরে বুধবার (৪ মে) সন্ধ্যায় খবর পেয়ে পুলিশ গিয়ে সেখান থেকে তাকে উদ্ধার করে বদরগঞ্জ থানায় নিয়ে যায়। ঘটনাটি কুড়িগ্রামে জানানো হলে সেখান থেকে ওই শিক্ষার্থীর চাচা বাদী হয়ে থানায় অপহরণ ও ধর্ষণ চেষ্টার মামলা করেন। বৃহস্পতিবার (৫ মে) পুলিশ অভিযান চালিয়ে শ্যালক শহিদুল ও দুলাভাই আরিফুলকে গ্রেফতার করে। পরে বিকেলে তাদের আদালতের মাধ্যমে কারাগারে পাঠানো হয়।

বিষয়টির সত্যতা নিশ্চিত করে বদরগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) হাবিবুর রহমান বলেন, শহিদুল ইসলাম বিবাহিত এবং তার দুই সন্তান রয়েছে। অবিবাহিত পরিচয় দিয়ে ওই ছাত্রীর সঙ্গে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে তোলে। এ ঘটনায় মামলা দায়ের হলে দুজনকে গ্রেফতার করে আদালতের মাধ্যমে কারাগারে পাঠানো হয়েছে। এছাড়া ওই ছাত্রীকে উদ্ধার করে ভিকটিম সাপোর্ট সেন্টারে রাখা হয়েছে।

Place your advertisement here
Place your advertisement here