• রোববার   ১৬ জানুয়ারি ২০২২ ||

  • মাঘ ৩ ১৪২৮

  • || ১১ জমাদিউস সানি ১৪৪৩

Find us in facebook
সর্বশেষ:
বাংলাদেশকে আরো ৯৬ লাখ ফাইজার টিকা দিলো যুক্তরাষ্ট্র পীরগঞ্জে পৃথক সড়ক দুর্ঘটনায় শিশুসহ তিন জনের মৃত্যু পরিবেশ উন্নয়নে বৃক্ষরোপণ কার্যক্রম অব্যাহত রয়েছে: পরিবেশমন্ত্রী নাসিক নির্বাচন জাতীয় পর্যায়ে উদাহরণ সৃষ্টি করবে: কৃষিমন্ত্রী ভূমি ব্যবস্থাপনাকে এসওপি’র আওতায় আনা হচ্ছে: ভূমি সচিব

পীরগঞ্জে চাঞ্চল্যকর ভ্যান চালক হত্যা মামলার প্রধান আসামি গ্রেফতার

– দৈনিক রংপুর নিউজ ডেস্ক –

প্রকাশিত: ৬ জানুয়ারি ২০২২  

Find us in facebook

Find us in facebook

রংপুরে পীরগঞ্জে চাঞ্চল্যকর ভ্যান চালক মোকছেদ আলী হত্যা মামলার প্রধান আসামি শামীম মিয়াকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। ভ্যান ছিনিয়ে নিতেই তাকে গলা কেটে হত্যা করা হয়েছে বলে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দিয়েছেন শামীম। বৃহস্পতিবার (৬ জানুয়ারি) সন্ধ্যায় বিষয়টি নিশ্চিত করেন রংপুরের ডি সার্কেল আখতারুজ্জামান।

গ্রেফতার শামীম মিয়ার স্বীকারোক্তির উদ্ধৃতি দিয়ে রংপুরের ডি সার্কেল আখতারুজ্জামান জানান, মোকছেদ তার পূর্ব পরিচিত ছিল। একই এলাকায় বাড়ি হওয়ায় মোকছেদের ভ্যান ছিনিয়ে নেয়ার পরিকল্পনা করে শামীম। এ জন্য তার সঙ্গে সুম্পর্ক গড়ে তোলে।

গত বছরের ১৩ ডিসেম্বর মাগরিবের নামাজের পরে মোকছেদের ভ্যান স্থানীয় সোডাপীর বাজার থেকে ভাড়া করে শামীম।  এরপর তারা পীরগঞ্জ বাসস্ট্যান্ডে যায়। সেখানে শামীম একটি ছুরি কিনেন। পরে শামীম কৌশলে মোকছেদকে খালাশপীর যাওয়ার কথা বলে ঘটনাস্থলে নিয়ে আসে। এরপর সে পিছন থেকে ভিকটিমের গলায় ছুরি দিয়ে আঘাত করে। এ সময় মোকছেদ ভ্যান থেকে লাফ দিয়ে দৌড়ে পালানোর চেষ্টা করলে শামীম তাকে ধরে ফেলে এবং তাদের মধ্যে ধস্তাধস্তি হয়। এতে শামীমের হাতের আংগুল কেটে যায়। এরপর সে মোকছেদকে জোরপূর্বক মাটিতে ফেলে ছুরি দিয়ে জবাই করে মৃত্যু নিশ্চিত করে ভ্যান নিয়ে সাদুল্ল্যাপুরে তার শ্বশুর বাড়িতে চলে যায়। পথিমধ্যে ধাপেরহাটে সে তার কাটা আংগুলের চিকিৎসা করে। এরপর সে ওই ভ্যান নিয়ে পলাশবাড়িতে গিয়ে ভ্যানের ব্যাটারি খুলে বিক্রি করে এবং ভ্যানটি ফেলে রেখে ঢাকাতে গিয়ে আত্মগোপন করেন। শামীমের দেয়া তথ্যের ভিত্তিতে লুট যাওয়া ভ্যানের ব্যাটারী ও হত্যাকাণ্ডে ব্যবহৃত ছুরি উদ্ধার করা হয়।

বৃহস্পতিবার বিকালে গ্রেফতারকৃত প্রধান আসামি শামীমকে আদালতে তোলা হলে স্বেচ্ছায় আদালতে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দিয়েছে। জবানবন্দি শেষে আদালত তাকে জেলহাজতে পাঠানোর আদেশ দেন।

এর আগে গত বছরের ১৩ ডিসেম্বর সন্ধ্যায় পীরগঞ্জ উপজেলার দারিয়াপুর গ্রামের খেজের উদ্দিনের ছেলে মোকছেদ মিয়া ব্যাটারী চালিত ভ্যান নিয়ে বাড়ি থেকে বের হয়ে যান। এরপর আর ওই দিন রাতে বাড়িতে ফিরে আসেনি। বাড়িতে ফিরে না আসায় পরিবারের লোকজন খোঁজাখুঁজি অব্যাহত রাখেন। পরের দিন ১৪ ডিসেম্বর সকাল ৮টার দিকে মোকছেদ মিয়ায় গলাকাটা মরদেহ পীরগঞ্জ উপজেলার বড় আলমপুর ইউনিয়নের কৈগাড়ি গ্রামের বাগারশাহ দিঘীর পাড় থেকে উদ্ধার করা হয়। হত্যাকারীরা তার সঙ্গে থাকা ব্যাটারী চালিত ভ্যানটি নিয়ে যায়। এ ঘটনায় তদন্তে নামে পীরগঞ্জ থানা পুলিশ।

তদন্তকালে ২৫ ডিসেম্বর পলাশবাড়ি থানা এলাকা থেকে ভিকটিম মোকছেদ মিয়ার লুটকৃত ভ্যানটি পরিত্যক্ত অবস্থায় উদ্ধার করা হয়। এরপর ভ্যানটি পরিত্যাক্ত স্থানে রেখা যাওয়া ব্যক্তিকে খোঁজতে থাকে পুলিশ। গত ২ জানুয়ারি গভীর রাতে গাইবান্ধা জেলার সাদুল্ল্যাপুর উপজেলা থেকে গ্রেফতার করা হয় ঘাতক শামীমের শ্যালক সাজাহান ও পীরগঞ্জ উপজেলার নকারপাড়া এলাকা থেকে শামীমের স্ত্রী সাবানা খাতুনকে। তাদের জিজ্ঞাসাবাদে বের হয়ে আসে চাঞ্চল্যকর তথ্য।

পরে বুধবার (৫ জানুয়ারি) র‍্যাব-৪ এর সহযোগিতায়  ঢাকার পীরেরবাগ এলাকা থেকে প্রধান আসামি শামীম মিয়াকে গ্রেফতার করা হয়।

Place your advertisement here
Place your advertisement here