• রোববার   ১৬ জানুয়ারি ২০২২ ||

  • মাঘ ৩ ১৪২৮

  • || ১১ জমাদিউস সানি ১৪৪৩

Find us in facebook
সর্বশেষ:
বাংলাদেশকে আরো ৯৬ লাখ ফাইজার টিকা দিলো যুক্তরাষ্ট্র পীরগঞ্জে পৃথক সড়ক দুর্ঘটনায় শিশুসহ তিন জনের মৃত্যু পরিবেশ উন্নয়নে বৃক্ষরোপণ কার্যক্রম অব্যাহত রয়েছে: পরিবেশমন্ত্রী নাসিক নির্বাচন জাতীয় পর্যায়ে উদাহরণ সৃষ্টি করবে: কৃষিমন্ত্রী ভূমি ব্যবস্থাপনাকে এসওপি’র আওতায় আনা হচ্ছে: ভূমি সচিব

দেশে এল মেট্রোরেলের সপ্তম চালান

– দৈনিক রংপুর নিউজ ডেস্ক –

প্রকাশিত: ২৩ ডিসেম্বর ২০২১  

Find us in facebook

Find us in facebook

মঙ্গলবার (২১ ডিসেম্বর) বিকাল ৫টায় বাণিজ্যিক এ জাহাজটি বন্দর সীমানায় এসে পৌছায়। এনিয়ে ৭ম চালানে মোট ৪৬টি কোচ ও ১৬টি ইঞ্জিন মোংলা সমুদ্র বন্দর থেকে খালাস করা হলো বলে জানিয়েছে মোংলা বন্দর কর্তৃপক্ষ।

মোংলা বন্দরের হারবার বিভাগ জানায়, ২ ডিসেম্বরের জাপানের কোবে বন্দর থেকে মেট্রোরেলের বগি ও ইঞ্জিন বোঝাই করে ছেড়ে আসে বিদেশী বাণিজ্যিক জাহাজ এসপিএম ব্যাংকক। এই জাহাজটিতে মেট্রোরেলের আরও ৪৪ প্যাকেজের ৪শ ৯০ মেট্রিক টন মেশিনারিজ পণ্য রয়েছে।

মঙ্গলবার বন্দরের ৮ নম্বর জেটিতে ভিড়ার পর জাহাজটি হতে প্রথমে কোচ নামানো সরঞ্জামাদি প্রস্তুত করে বন্দরের ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান মেসার্স খুলনা ট্রেডার্স লি: এর কর্মকর্তা কর্মচারীরা। বুধবার সকাল থেকে একে একে বগি ও ইঞ্জিন এবং প্যাকেটে থাকা অন্যান্য মেশিনারিজগুলো নামানো হবে বলে জানিয়েছেন জাহাজটির স্থানীয় শিপিং এজেন্ট।

পণ্য বোঝাই বিদেশী জাহাজ এসপিএম ব্যাংকক'র স্থানীয় শিপিং এজেন্ট এনসিয়েন্ট স্টিম শিপ কোম্পানি লিমিটেডের জেনারেল ম্যানেজার মোঃ ওহিদুজ্জামান জানান, গত ২ ডিসেম্বর জাপানের কোবে বন্দর থেকে ঢাকা মেট্রোরেলের ৮টি রেলওয়ে কোচ, ৪টি ইঞ্জিন ও ৪৪ প্যাকেজের ৪শ ৯০ মেঃ টন ওজনের মেশিনারীজ পণ্য নিয়ে ছেড়ে আসা এসপিএম ব্যাংকক জাহাজটি মঙ্গলবার দুপুরে মোংলা বন্দরের চ্যানেল দিয়ে বিকাল নাগাদ বন্দরের জেটিতে ভিড়ে। এরপর ৮ নম্বর জেটিতে অবস্থানরত ওই জাহাজটি হতে প্রথমে কোচ নামানো জন্য প্রস্তুত নেয়া হয়েছে।

জাহাজের হ্যাচে থাকা কোচে ও ইঞ্জিনসহ অন্যান্য মালামাল বুধবার সকাল থেকে খালাসে কাজ শুরু করা হবে। জাহাজ থেকে খালাস করে এসব পণ্য খোলা বার্জে (নৌযানে) নামানো হবে। খোলা বার্জে করেই এ সকল মালামাল ঢাকার উত্তরার দিয়াবাড়ী ডিপোতে নেয়া হবে বলেও জানান তিনি।

আরও পড়ুন: ত্যাগীদের দীর্ঘশ্বাস আমাদের ধ্বংস ডেকে আনবে: পরশ

মোংলা বন্দর কর্তৃপক্ষ হারবার মাস্টার ও ভারপ্রাপ্ত সচিব কমান্ডার শেখ ফখর উদ্দীন জানান, দেশের দক্ষিণাঞ্চলে সরকারের যতগুলো মেগা প্রকল্পের কাজ চলমান রয়েছে, এ সকল প্রকল্পের পণ্য বা মালামাল মোংলা বন্দর থেকে খালাস হচ্ছে। আমদানীকারক প্রতিষ্ঠান তাদের আমদানিকৃত পণ্যগুলো মোংলা সমুদ্র বন্দর দিয়ে খালাস করার খুবই আনন্দিত কারণ, এখানে জাহাজের কোন জট নাই এবং বন্দর চ্যানেলে ও জেটি থেকে পণ্য বোঝাই বা খালাস করতে কোন বেগ পেতে হয়না। তাই বন্দরের চেয়ারম্যানসহ অন্যান্য কর্মকর্তারা এবং এর সাথে সংশ্লিষ্ট যারাই রয়েছি অধিকতর গুরুত্বের সাথেই আমরা মেট্রোরেলের এ মালামাল খালাস ও পরিবহণে সর্বাত্মক সেবা দিয়ে যাচ্ছি। শুধু মেট্রোরেলই নয়, পদ্মা সেতু, রুপপুর পারমাণবিক কেন্দ্র, রামপাল তাপবিদ্যুৎ কেন্দ্র ও বঙ্গবন্ধু রেল সেতুসহ দেশের চলমান মেগা প্রজেক্টের পণ্য আসছে এবং এ বন্দর দিয়ে খালাস হয়ে পুনরায় জাহাজগুলো বন্দর ত্যাগ করে। এতে বন্দরের সেবার মান বৃদ্ধির পাশাপাশি বেড়েছে এ বন্দরের ব্যাপক কর্মচাঞ্চল্যতাও।

এর আগেও পর্যায়ক্রমে এই মেট্ট্রোরেলের পণ্যগুলো  চলতি বছরের গত ৩১ মার্চ মেট্রোরেলের প্রথম চালানে ৬টি কোচ ও ২টি ইঞ্জিন নিয়ে মোংলা বন্দরে আসে এসপিএম ব্যাংকক। এরপর ধারাবাহিকভাবে গত ৫ মে এম,ভি ওশান গ্রেস জাহাজে আসে ৬টি কোচ, ২০ জুলাই এম,ভি হরিজন-০৯ এ আসে জাহাজে ১০টি কোচ ও ২টি ইঞ্জিন, ১২ সেপ্টেম্বর ৪টি কোচ ও ২টি ইঞ্জিন নিয়ে এম,ভি গ্রেসার্স কোরাল, ২ অক্টোবর ৪টি ইঞ্জিন ও ৮টি কোচ নিয়ে এম,ভি এসপিএম ব্যাংকক ও গত ১২ নভেম্বর এম,ভি ব্রাইট কোরাল ৪টি কোচ ও ২টি ইঞ্জিন নিয়ে এ বন্দরে আসে খালাস করে। পুনরায় আবার ৭ম চালানে ৮টি কোচ ও ৪টি ইঞ্জিন নিয়ে মঙ্গলবার বিকালে মোংলা বন্দর জেটিতে নঙ্গর করলো বিদেশী জাহাজ এসপিএম ব্যাংকক।

Place your advertisement here
Place your advertisement here