• শনিবার ২০ এপ্রিল ২০২৪ ||

  • বৈশাখ ৭ ১৪৩১

  • || ১০ শাওয়াল ১৪৪৫

Find us in facebook
সর্বশেষ:
বাংলাদেশের জাতীয় পতাকার অন্যতম নকশাকার বীর মুক্তিযোদ্ধা শিব নারায়ণ দাস, আজ ৭৮ বছর বয়সে মৃত্যুবরণ করেছেন। বন্যায় দুবাই এবং ওমানে বাংলাদেশীসহ ২১ জনের মৃত্যু। আন্তর্জাতিক বাজারে আবারও বাড়ল জ্বালানি তেল ও স্বর্ণের দাম। ইসরায়েলের হামলার পর প্রধান দুটি বিমানবন্দরে ফ্লাইট চলাচল শুরু। ইসরায়েল পাল্টা হামলা চালিয়েছে ইরানে।

তারবিহীন ব্রডব্যান্ড চালু করবে মোবাইল অপারেটররা

– দৈনিক রংপুর নিউজ ডেস্ক –

প্রকাশিত: ৫ মার্চ ২০২৪  

Find us in facebook

Find us in facebook

ফোর-জিসহ উচ্চ গতির ফাইভ-জি প্রযুক্তিতে ওয়্যারলেস ব্রডব্যান্ড চালু করবে মোবাইল অপারেটররা। প্রথমে বিভিন্ন ব্যবসা প্রতিষ্ঠান এবং পরে আবাসিক গ্রাহকেরা পাবেন এই সেবা। আগামী সপ্তাহেই অপারেটরদের লাইসেন্স দিতে পারে বাংলাদেশ টেলিযোগাযোগ নিয়ন্ত্রণ কমিশন (বিটিআরসি)।

সম্প্রতি মোবাইল অপারেটরদের ফিক্সড ওয়্যারলেস অ্যাকসেস বা তারবিহীন ব্রডব্যান্ড সেবা চালুর অনুমতি দিতে যাচ্ছে বিটিআরসি। এটি চালু হলে তারের ঝামেলা ছাড়াই উচ্চ গতির ফাইভ-জি ব্রডব্যান্ড সেবা পাবেন গ্রাহকেরা। তবে আইএসপি ব্যবসায়ীরা বলছেন, মোবাইল অপারেটররা ব্রডব্যান্ড চালু করলে তারের মাধ্যমে ইন্টারনেট সেবাদানকারীরা ক্ষতিগ্রস্ত হবে।

বিটিআরসির কমিশনার শেখ রিয়াজ আহমেদ বলেন, তারবিহীন ব্রডব্যান্ড সেবা চালুর বিষয়টি কমিশনে অনুমোদনের পর মন্ত্রণালয়ে যাবে। পলিসি অনুমোদনের পর লাইসেন্সের প্রক্রিয়া শুরু হবে।

লাইসেন্স পাওয়ার পর গ্রাহকের ব্যান্ড-উইডথ চাহিদা অনুযায়ী প্যাকেজ ও দাম নির্ধারণ করবে অপারেটররা। তারবিহীন এই ব্রডব্যান্ডে টু-জি, থ্রি-জি ও ফোর-জির পাশাপাশি পাওয়া যাবে উচ্চ গতির ফাইভ-জি সংযোগ। প্রাথমিক পর্যায়ে শুধু ব্যবসা প্রতিষ্ঠানে দেওয়া হবে এই ওয়্যারলেস ব্রডব্যান্ড সেবা।

রবির চিফ করপোরেট অ্যান্ড রেগুলেটরি অফিসার সাহেদুল আলম বলেন, মোটামুটি ফাইভ-জি রেডি আছে। কিছু ইকুইপমেন্ট আমাদের যোগ করতে হবে। সেক্ষেত্রে যখন গ্রাহকদের চাহিদা থাকবে, তখন আমরা ফিক্সড ব্রডব্যান্ড সার্ভিস গ্রাহকদের দিতে পারব।

এদিকে মোবাইল অপারেটররাও ব্রডব্যান্ড ইন্টারনেট চালু করলে ব্যবসায় ক্ষতির আশঙ্কা করছে ইন্টারনেট সেবাদানকারী প্রতিষ্ঠানগুলোর সংগঠন আইএসপিএবি। আইএসপিএবি’র যুগ্ম মহাসচিব আব্দুল কাইউম রাশেদ বলেন, ফিক্সড ব্রডব্যান্ড সেবা মোবাইল অপারেটররাও দিলে গ্রাহকদের এখান থেকে সুইচ করার সম্ভাবনা তো আছেই। গ্রাহকেরা এখান থেকে সুইচ করলে আমাদের ওপর একটা চাপ অবশ্যই আসবে।

বর্তমানে মোবাইল ফোনের মাধ্যমে ইন্টারনেট ব্যবহারকারী ১১ কোটির বেশি। আর ব্রডব্যান্ড ইন্টারনেট ব্যবহার করছেন এক কোটি ২৮ লাখের বেশি গ্রাহক।

Place your advertisement here
Place your advertisement here