• বৃহস্পতিবার   ০৭ জুলাই ২০২২ ||

  • আষাঢ় ২২ ১৪২৯

  • || ০৬ জ্বিলহজ্জ ১৪৪৩

Find us in facebook
সর্বশেষ:
বায়তুল মোকাররমে ঈদের প্রথম জামাত ৭টায় হিলি স্থলবন্দর দিয়ে পেঁয়াজ আমদানি শুরু ঈদের ছুটিতে বাড়ি ফেরার পথে প্রাণ গেল মা-মেয়ের মানুষের কষ্ট লাঘবে লোডশেডিংয়ের রুটিন করার পরামর্শ প্রধানমন্ত্রীর ডিজিটাল ডিভাইস আমরা রপ্তানি করব: প্রধানমন্ত্রী

কুড়িগ্রামে বন্যা পরিস্থিতির কিছুটা উন্নতি

– দৈনিক রংপুর নিউজ ডেস্ক –

প্রকাশিত: ২৩ জুন ২০২২  

Find us in facebook

Find us in facebook

কুড়িগ্রামের তিস্তা, ধরলা, দুধকুমর ও ব্রহ্মপুত্রসহ সবকটি নদ-নদীর পানি কমতে শুরু করেছে। বৃহস্পতিবার সকালে স্থানীয় পানি উন্নয়ন বোর্ড জানায়, গত ২৪ ঘণ্টায় ধরলা নদীর সেতু পয়েন্টে ২০ সে.মি. পানি কমে বিপদসীমার ২০ সে.মি, ব্রহ্মপুত্র নদের চিলমারী পয়েন্টে ৩৭ সে.মি ও নুনখাওয়া পয়েন্টে মাত্র ৫ সে.মি ওপর দিয়ে পানি প্রবাহিত হচ্ছে। ফলে বন্যা পরিস্থিতির সামান্য উন্নতি হয়েছে। 

কিন্তু গত ১০ দিন ধরে পানিতে থাকা দুই লক্ষাধিক বানভাসীর দুর্ভোগ কমেনি। বন্যা যত স্থায়ী হচ্ছে ততই দুর্ভোগ বাড়ছে বানভাসী মানুষের।এদিকে, চারণভূমিসহ মাঠ-ঘাট তলিয়ে যাওয়ায় গো-খাদ্যের তীব্র সংকট দেখা দিয়েছে। দুর্গত এলাকায় বানভাসীদের খাদ্য সংকট প্রকট আকার ধারণ করেছে। সেই সাথে বিশুদ্ধ পানির অভাব চলছে। নদীর পাশে বাঁধে ও আশ্রয়কেন্দ্রে থাকা বন্যার্তরা রয়েছেন কষ্টে। 

এছাড়াও নৌকার ওপর বাস করা মানুষজনের শৌচাগারের অভাবে স্যানিটেশন সমস্যায় রয়েছে। অন্যদিকে, দুর্গত এলাকায় দেখা দিয়েছে ডায়রিয়া, জ্বর ও হাতে-পায়ে ঘা। জেলা স্বাস্থ্য বিভাগের ৮৫টি মেডিকেল টিম খাবার স্যালাইন ও ওষুধ বিতরণ করলেও পাচ্ছেন না অনেকেই সেই সেবা। তাছাড়া কষ্টে থাকা এসব মানুষের ত্রাণ না পাওয়ার অভিযোগও রয়েছে।

পানি উন্নয়ন বোর্ডের নির্বাহী প্রকৌশলী আব্দুল্ল্যাহ আল মামুন জানান, ব্রহ্মপুত্র ও ধরলার পানি বিপদসীমার ওপর থাকলেও এখন দ্রুত পানি কমে এসে বন্যা পরিস্থিতির উন্নতি হবে। 

Place your advertisement here
Place your advertisement here