ব্রেকিং:
করোনা পরিস্থিতিতে দেশের মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক পর্যায়ের সব শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের চলমান ছুটি আগামী ৩০ জুন পর্যন্ত বৃদ্ধি করা হয়েছে
  • রোববার   ১৩ জুন ২০২১ ||

  • জ্যৈষ্ঠ ২৯ ১৪২৮

  • || ০১ জ্বিলকদ ১৪৪২

Find us in facebook
সর্বশেষ:
সম্মিলিত প্রচেষ্টায় দেশ থেকে শিশুশ্রম নিরসন সম্ভব- প্রধানমন্ত্রী করোনা আপডেট: গত ২৪ ঘণ্টায় দেশে আরও ৩৯ জনের মৃত্যু, শনাক্ত ১৬৩৭ ৩০ জুন পর্যন্ত বাড়লো শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের ছুটি `উদোর পিণ্ডি বুধোর ঘাড়ে চাপানো বিএনপির পুরনো অভ্যাস` মিঠাপুকুরে করলাক্ষেতে ভাইরাসজনিত পাতা মোড়ানো রোগ দেখা দিয়েছে

দীপাবলি উপলক্ষে গঙ্গাচড়ায় চলছে উৎসবের আয়োজন

– দৈনিক রংপুর নিউজ ডেস্ক –

প্রকাশিত: ১৩ নভেম্বর ২০২০  

Find us in facebook

Find us in facebook

আগামীকাল শনিবার দীপাবলি। আলোর উৎসব। হিন্দু সম্প্রদায়ের ঘরে ঘরে চলছে উৎসবের আয়োজন। আর এই দীপাবলিকে নিয়ে রংপুরের গঙ্গাচড়ায় পাল পাড়ায় চলছে কর্মব্যস্ততা। সারাদিন সারাক্ষণ চলছে নারী পুরুষদের কর্মচাঞ্চল্যতা।
উপজেলার বড়বিল ইউনিয়নের উত্তর পানাপুকুর গ্রাম। এখানে পাল সম্প্রদায়ের প্রায় ৫০ পরিবারের বাস। এখানে ৫০ পরিবারের বাস হলেও বর্তমানে ২৫/৩০ পরিবারের লোকজন বাপ-দাদার আদি পেশাকে আঁকড়ে ধরে আছে আজও। অনেকে পেশা বদল করে অন্য পেশায় চলে গেছে।

সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায়, প্রতিটি বাড়ির উঠোন জুড়ে চলছে দিয়া তৈরি ও শুকানোর কাজ। নারী পুরুষ সবাই ব্যস্ত সময় পার করছে। এ সময় কথা হয় মন্টু পালের সাথে। এ বছর তিনি ৩০ হাজার দিয়া তৈরি করেছেন। প্রতি হাজার দিয়া পাইকারি দরে বিক্রি করছেন ৪০০ টাকা। এ জন্য মাটি ক্রয় ও অন্যান্য খরচ মিলে ব্যয় হবে ৪ হাজার টাকা। আর এ কাজে তাকে সহযোগিতা করছে তার স্ত্রী, শাশুড়ি, ছেলে ও ছেলের বউ। পাশের বাড়ির গোকুল পাল তার মা দীপালী রানীকে নিয়ে তখন আগুনে পোড়ানো দিয়া সংরক্ষণ করছে বিক্রির জন্য।

এসব দিয়া বাড়ি থেকে নিয়ে যায় পাইকাররা। পাইকাররা গ্রামে গ্রামে বাড়ি বাড়ি ঘুরে বিক্রি করে দিয়ার। তাছাড়া হাটেও বিক্রি হয়। হিন্দু সম্প্রদায়ের লোকজন পূর্বসূরি মৃত ব্যক্তিদের আত্মার মঙ্গলার্থে ওইদিন রাতে বাড়িতে শিখা প্রজ্বলন করে। এ কারণেই মাটির তৈরি দিয়ারের চাহিদা বেড়ে যায়।

Place your advertisement here
Place your advertisement here