• শুক্রবার ১৯ এপ্রিল ২০২৪ ||

  • বৈশাখ ৬ ১৪৩১

  • || ০৯ শাওয়াল ১৪৪৫

Find us in facebook
সর্বশেষ:
মুজিবনগর সরকারের ভূমিকা ইতিহাসে অনন্য: রাষ্ট্রপতি নির্বাচনে মন্ত্রী-এমপিরা হস্ত‌ক্ষেপ করবে না: ওবায়দুল কাদের লালমনিরহাটে যুবলীগ কর্মীর পায়ের রগ কাটলেন যুবদল নেতা বাসার ছাদ থেকে পড়ে যুবকের রহস্যজনক মৃত্যু ঠাকুরগাঁওয়ে ঈদ-নববর্ষে ১০ জন নিহত, আহত ২ শতাধিক

ঠাকুরগাঁওয়ে ১১৯ ইটভাটার মধ্যে ১১৪টি অবৈধ, তবুও চলছে পুরোদমে

– দৈনিক রংপুর নিউজ ডেস্ক –

প্রকাশিত: ২৬ ফেব্রুয়ারি ২০২৩  

Find us in facebook

Find us in facebook

 দেশের উত্তরের কৃষিপ্রধান জেলা ঠাকুরগাঁও। এখানে অধিকাংশ মানুষ কৃষির ওপর নির্ভরশীল। তবে অবৈধ ইটভাটা গড়ে ওঠায় যেমন কমছে আবাদি জমি অপরদিকে ক্ষতি সাধন হচ্ছে পরিবেশের। তারপরেও কোনোকিছুর তোয়াক্কা না করে পুরোদমে চলছে ইটভাটাগুলো। 

গেল বছরের নভেম্বরে দেশের সব জেলার অবৈধ ইটভাটা ও ইটভাটায় জ্বালানি হিসেবে কাঠের ব্যবহার ৭ দিনের মধ্যে বন্ধ করার নির্দেশনা জারি করেন হাইকোর্ট। তবে এ নির্দেশনার পরও অবৈধ ইটভাটার কার্যক্রম বন্ধ রাখতে ব্যর্থ কর্তৃপক্ষ।

রংপুর বিভাগীয় পরিবেশ অধিদপ্তর কার্যালয় সূত্রে জানা যায়, এ জেলায় মোট ১১৯টি ইটভাটা রয়েছে। যার মধ্যে বৈধ ভাটার সংখ্যা মাত্র ৫ টি। বাকি ১১৪টি ইটভাটা নিয়ম না মেনে (ছাড়পত্র বিহীন) অবৈধভাবে গড়ে উঠেছে। 

এ বিষয়ে জানতে চাইলে রংপুর বিভাগীয় পরিবেশ অধিদপ্তরের পরিচালক সৈয়দ ফরহাদ হোসেন মুঠোফোনে বলেন, এর আগে জেলাটি পঞ্চগড় জেলা থেকে দেখভাল করা হত। এখন সেখানে বিভাগীয় অফিস হয়েছে। ইতোমধ্যে জেলা প্রশাসনের সঙ্গে সমন্বয় করে ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করা হয়েছে। এরপরেও আমরা পরিবেশ আদালতের মাধ্যমে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করব। আর যে ভাটাগুলো ভ্রাম্যমাণ আদালতের নির্দেশনার পরও একইভাবে চলছে সেগুলোর ক্ষেত্রেও পদক্ষেপ গ্রহণ করা হবে।

ঠাকুরগাঁওয়ের জেলা প্রশাসক মাহবুবুর রহমান বলেন, অবৈধ ইটভাটার বিরুদ্ধে আমাদের অভিযান অব্যাহত রয়েছে। এর আগে পঞ্চগড় পরিবেশ অধিদপ্তর আমাদের জেলা দেখভাল করায় ফাঁকি দেওয়া অনেকটা সহজ ছিল। এখন বিভাগীয় অফিস দেখছে। যাতে করে অবৈধ ইটভাটাগুলো কোনো কার্যক্রম পরিচালনা করতে না পারে সে বিষয়ে জেলা প্রশাসন সজাগ রয়েছে। 

Place your advertisement here
Place your advertisement here