• বৃহস্পতিবার ২০ জুন ২০২৪ ||

  • আষাঢ় ৬ ১৪৩১

  • || ১২ জ্বিলহজ্জ ১৪৪৫

Find us in facebook

ঘরে পড়েছিল শুকতারার গলা ও হাত কাটা দেহ, অতঃপর...

– দৈনিক রংপুর নিউজ ডেস্ক –

প্রকাশিত: ৫ জুন ২০২৪  

Find us in facebook

Find us in facebook

রংপুরের গঙ্গাচড়া উপজেলায় ঘর থেকে শুকতারা বেগম নামে এক গৃহবধূর গলা ও হাত কাটা মরদেহ উদ্ধার করেছে পুলিশ। ঘটনার পরপরই পালিয়েছেন ওই গৃহবধূর স্বামী মাহাবুব হাসান রাহাত ওরফে বল্টু।

মঙ্গলবার (৪ জুন) সকালে উপজেলার আলমবিদিতর ইউনিয়নের ব্রহ্মত্ত বালাপাড়ায় এ ঘটনা ঘটে। নিহত শুকতারা বেগম বালাপাড়া গ্রামের মাহাবুব হাসান রাহাত ওরফে বল্টুর স্ত্রী।

জানা গেছে, প্রায় ১৬ বছর আগে রাহাতের সঙ্গে দিনাজপুরের পার্বতীপুর সদর এলাকার শুকতারার বিয়ে হয়। তাদের নবম শ্রেণিতে পড়ুয়া একটি ছেলে রয়েছে।

বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন গঙ্গাচড়া মডেল থানার ওসি মাসুমুর রহমান।

স্থানীয়দের বরাতে গঙ্গাচড়া মডেল থানার ওসি মাসুমুর রহমান জানান, রোববার রাহাতের মা ও তার ছেলে রংপুরে এক আত্মীয়ের বাড়িতে বেড়াতে যান। বাড়িতে তারা স্বামী-স্ত্রী ছিলেন। এরপর মঙ্গলবার (৪ জুন) সকাল ১০টার দিকে বাড়ি থেকে বের হয়ে যান রাহাত। তবে দীর্ঘসময় শুকতারাকে না দেখে প্রতিবেশীরা তার ঘরে ঢুকে বিছানায় গলা ও হাত কাটা অবস্থায় তাকে পড়ে থাকতে দেখেন।

তিনি আরো বলেন, শুকতারার গলা ও হাত কাটাসহ শরীরের বিভিন্ন স্থানে আঘাতের চিহ্ন রয়েছে। মরদেহ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে মরদেহ পাঠানো হয়েছে। পাশাপাশি শুকতারার স্বজনদের খবর দেওয়া হয়েছে। তারা এলে কথা বলে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়া হবে। এছাড়া নিহতের স্বামীকে গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে।

রংপুরের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (এ সার্কেল) হোসেন মোহাম্মদ রায়হান বলেন, মধ্যরাতে স্বামী-স্ত্রীর মধ্যে ঝগড়ার পর স্বামী রাহাত ওই গৃহবধূকে গলা কেটে হত্যা করেছেন বলে ধারণা করা হচ্ছে। ঘটনাটি তদন্ত করা হচ্ছে। ময়নাতদন্তের প্রতিবেদন পেলে আসল রহস্য উদ্‌ঘাটন করা যাবে। 

Place your advertisement here
Place your advertisement here