• শনিবার ২০ এপ্রিল ২০২৪ ||

  • বৈশাখ ৭ ১৪৩১

  • || ১০ শাওয়াল ১৪৪৫

Find us in facebook
সর্বশেষ:
বাংলাদেশের জাতীয় পতাকার অন্যতম নকশাকার বীর মুক্তিযোদ্ধা শিব নারায়ণ দাস, আজ ৭৮ বছর বয়সে মৃত্যুবরণ করেছেন। বন্যায় দুবাই এবং ওমানে বাংলাদেশীসহ ২১ জনের মৃত্যু। আন্তর্জাতিক বাজারে আবারও বাড়ল জ্বালানি তেল ও স্বর্ণের দাম। ইসরায়েলের হামলার পর প্রধান দুটি বিমানবন্দরে ফ্লাইট চলাচল শুরু। ইসরায়েল পাল্টা হামলা চালিয়েছে ইরানে।

হাবিপ্রবিতে পূজামণ্ডপ ভাঙ্গার বানোয়াট তথ্য টুইটারে

– দৈনিক রংপুর নিউজ ডেস্ক –

প্রকাশিত: ২০ ফেব্রুয়ারি ২০২৪  

Find us in facebook

Find us in facebook

সম্প্রতি, দিনাজপুরের হাজী মোহাম্মদ দানেশ বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ে মুসলমান শিক্ষার্থী কর্তৃক হিন্দু ধর্মাবলম্বী শিক্ষার্থীদের ওপর হামলা ও স্বরস্বতী পূজা মণ্ডপ ভাঙচুর করা হয়েছে দাবিতে একটি ভুয়া এবং বানোয়াট তথ্য এবং ভিডিও এক্সে (সাবেক টুইটার) প্রচার করা হয়েছে।

অনুসন্ধানে জানা যায়, হাজী মোহাম্মদ দানেশ বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ে (হাবিপ্রবি) মুসলমান শিক্ষার্থী কর্তৃক স্বরস্বতী পূজা মণ্ডপ ভাঙচুর কিংবা হিন্দু ধর্মাবলম্বী শিক্ষার্থীদের ওপর হামলা ঘটনা ঘটেনি। এটি সম্পূর্ণ মিথ্যা এবং বিভ্রান্তিকর বলে জানিয়েছে বিশ্ববিদ্যালয়ের পূজা উদযাপন কমিটি।

শনিবার (১৭ ফেব্রুয়ারি) পূজা উদযাপন কমিটির আহবায়ক অধ্যাপক ড. শ্রীপতি সিকদার ও সদস্য সচিব কৃষ্ণ চন্দ্র রায় স্বাক্ষরিত এক বিবৃতিতে বিষয়টি জানানো হয়।

বিবৃতিতে বলা হয়, গত বুধবার (১৪ ফেব্রুয়ারি) বিশ্ববিদ্যালয়ে হিন্দু সম্প্রদায়ের অন্যতম ধর্মীয় উৎসব সরস্বতী পূজা যথাযোগ্য ধর্মীয় ভাবগাম্ভীর্য ও উৎসবমুখর পরিবেশে পালিত হয়েছে। ঐদিন বিশ্ববিদ্যালয়ের শেখ রাসেল হল মাঠে সকাল ৮ টায় প্রতিমা স্থাপন, ৮.৩০ টায় পূজা আরম্ভ, ৯.৩০ টায় অঞ্জলি প্রদান, ১১ টায় প্রসাদ বিতরণ, সন্ধ্যা ৬ টায় সন্ধ্যা আরতি ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান এবং পরদিন সকাল ১০ টায় যথাযোগ্য মর্যাদায় প্রতিমা নিরঞ্জনের মাধ্যমে পূজা সুষ্ঠুভাবে সম্পন্ন হয়। পূজায় হিন্দু শিক্ষার্থীরা দেবী সরস্বতীর কাছে বিদ্যা প্রার্থনা করেন।

সরস্বতী পূজায় প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বিশ্ববিদ্যালয়ের মাননীয় ভাইস-চ্যান্সেলর প্রফেসর ড. এম. কামরুজ্জামান। এছাড়াও উপস্থিত ছিলেন সরস্বতী পূজা উদযাপন কমিটি-২০২৪ এর আহবায়ক প্রফেসর ড. শ্রীপতি সিকদার, সদস্য সচিব কৃষ্ণ চন্দ্র রায়, প্রক্টর প্রফেসর ড. মামুনুর রশিদ, ছাত্র পরামর্শ ও নির্দেশনা বিভাগের পরিচালক প্রফেসর ড. মাহাবুব হোসেন, কৃষি অনুষদের ডিন অধ্যাপক ড. বিধান চন্দ্র হালদার এবং হিন্দুধর্মের শিক্ষক, শিক্ষার্থী, কর্মকর্তা ও কর্মচারীবৃন্দ।

কিন্তু সাম্প্রদায়িক অস্থিতিশীলতা সৃষ্টির লক্ষ্যে, এ বিষয় নিয়ে একটি বিশেষ মহল বিশ্ববিদ্যালয়ে সরস্বতী পূজা চলাকালীন পূজা মণ্ডপ ভাঙা ও হিন্দু-মুসলিম শিক্ষার্থীদের মাঝে সংঘর্ষ নিয়ে ভুয়া এবং বানোয়াট তথ্য সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম এক্স (সাবেক টুইটার) এ 'Hindu Voice' 'Voice of Bangladeshi Hindus' সহ বিভিন্ন সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে উদ্দেশ্য প্রণোদিতভাবে ছড়াচ্ছে। যা সম্পূর্ণ মিথ্যা এবং বিভ্রান্তিকর। উক্ত যোগাযোগ মাধ্যমগুলোয় যেসব তথ্য প্রমাণ (ছবি ও ভিডিও) তুলে ধরা হয়েছে সেগুলো মন্দিরের দাবিতে আন্দোলনরত সনাতন শিক্ষার্থীদের সাথে প্রশাসনের সংশ্লিষ্ট ব্যক্তিবর্গের কথোপকথনের চিত্র যা অনুষ্ঠিত সরস্বতী পূজা উদযাপনের সাথে সংশ্লিষ্ট নয়। এ ধরনের তথ্য প্রকাশের আগে যথাযথ কর্তৃপক্ষের কাছ থেকে সত্যতা যাচাইপূর্বক প্রকাশের জন্য অনুরোধ করা হলো।

বিবৃতিতে আরো বলা হয়েছে, ক্যাম্পাসের মধ্যে অনুমোদনহীনভাবে ধর্মীয় বা যেকোনো ধরনের স্থাপনা নির্মাণ কাম্য নয়। এ ব্যাপারে সংশ্লিষ্ট সকলের সহযোগিতা কামনা করেছেন তাঁরা।

Place your advertisement here
Place your advertisement here