• শুক্রবার ১২ জুলাই ২০২৪ ||

  • আষাঢ় ২৮ ১৪৩১

  • || ০৪ মুহররম ১৪৪৬

Find us in facebook

টানা বসে কাজ করলে হতে পারে যত বিপদ

– দৈনিক রংপুর নিউজ ডেস্ক –

প্রকাশিত: ৪ জুন ২০২৪  

Find us in facebook

Find us in facebook

একটানা বসে কাজ করা শরীরের জন্য মোটেও ভালো নয়। আজকাল বেশিরভাগ অফিসেই কম্পিউটার, ল্যাপটপের সামনে বসে কাজ করতে হয়। অনেকে আবার অফিসের কাজ বাসায় করেন টানা বসে থেকে।

বিশেষজ্ঞরা বলছেন, এই অভ্যাস আপনার স্বাস্থ্যের অবনতি ঘটাতে পারে। একইসঙ্গে স্থূলতা এবং ধূমপানের মতো মৃত্যুর ঝুঁকি বাড়াতে পারে।

৯টা থেকে ৫টা কাজের সময় এখন পুরনো ইতিহাস। ওভারটাইম কাজ করা এখন সাধারণ ব্যাপার। আপনি মনে করতে পারেন, যে প্রথম দিকে অফিসে প্রবেশ বা লগ ইন করা এবং আপনার কাজ চালিয়ে যাওয়া নিশ্চিতভাবে উপকারী। কারণ এটি আপনাকে আপনার বসের সুনজর অর্জন করতে সহায়তা করতে পারে। তবে এটি আপনার স্বাস্থ্যের জন্য দীর্ঘমেয়াদী কোনো ক্ষতির কারণ হয়ে দাঁড়াতে পারে।

এ কারণেই বিশেষজ্ঞরা  দীর্ঘক্ষণ একই জায়গায় বসে কাজ করার অভ্যেসকে ধুমপানের সঙ্গে তুলনা করেছে। ধুমপানের ফলে যেমন শরীরে একাধির রোগ বাসা বাঁধে ঠিক তেমনই একটানা অনেকক্ষণ বসে থাকার ফলে হার্টের একাধিক সমস্যা হতে পারে। পাশাপাশি কোনো শারীরিক কার্যকলাপের অভাবে ফুসফুসের ধারণক্ষমতা কমে যায়।

তবে শুধু হার্ট ও ফুসফুসের সমস্যাই নয়, দীর্ঘক্ষণ বসে থাকার ফলে তল পেটে চর্বি জমে ওজন বাড়ে। এর ফলে শরীরে কোলেস্টেরলের মাত্রা অনিয়মিত হয়ে পড়ে। এখানেই শেষ নয় দীর্ঘক্ষণ বসে থাকার ফলে হাড়ের সমস্যা, গিঁটে ব্যাথ্যা, ঘাড়ে ব্যাথা, পিঠে ব্যাথার মত সমস্যার সৃষ্টি হয়।

হাঁটাচলার অভাবে প্রভাবিত হয় আমাদের মানসিক স্বাস্থ্য, উদ্দেশ্যহীনতা, একাগ্রতার অভাব তৈরি হয়, উদ্বেগ বাড়ে।

কীভাবে এই সমস্যার সমাধান করতে হবে এই নিয়ে তার ইনস্টাগ্রাম অ্যাকাউন্টে একটি পোস্ট শেয়ার করেছেন নিউট্রিশনিস্ট নমামী অগ্রওয়াল। তার পোস্টে দীর্ঘক্ষণ বসে থাকার কারণে একাধিক শারীরিক সমস্যার সূত্রপাত ও এই সমস্যার সমাধানের উপায়ের কথা জানিয়েছেন এই পুষ্টিবিদ।

বাড়িতেই হোক কিংবা অফিসে দীর্ঘক্ষণ এই বসে থাকার অভ্যাস থেকে বেরোতে হবে। এরজন্য প্রত্যেক দু’ঘণ্টা অন্তর একবার করে ব্রেক নিতেই হবে। তা যত গুরুত্বপূর্ণ কাজই থাকুক না কেন। শরীরের থেকে গুরুত্বপূর্ণ আর কিছুই নয়।

প্রত্যেক দু’ঘণ্টা অন্তর পনেরো মিনিট ধরে হেঁটে নিতে হবে। সব সময় হাঁটার মতো পরিস্থিতি না থাকলে অন্তত পানির বোতল ভরতে কাজের ফাঁকে ফাঁকে একবার করে উঠুন। এতে একটানা অনেকক্ষণ বসে থাকার সাইকেলটা ব্রেক করা যাবে। পাশাপাশি সারাক্ষণ চেষ্টা করুণ পীঠ ও শিরদাঁড়া যাতে সোজা থাকে। তা না থাকলেই কিন্তু পীঠ ও শিরদাঁড়ার একধিক সমস্যা হতে পারে।

সূত্র: কলকাতা টিভি

Place your advertisement here
Place your advertisement here