• বুধবার ২৪ জুলাই ২০২৪ ||

  • শ্রাবণ ৯ ১৪৩১

  • || ১৬ মুহররম ১৪৪৬

Find us in facebook
সর্বশেষ:
সর্বোচ্চ আদালতের রায়ই আইন হিসেবে গণ্য হবে: জনপ্রশাসনমন্ত্রী। ২৫ জুলাই পর্যন্ত এইচএসসির সব পরীক্ষা স্থগিত।

দুর্নীতি মামলায় আগাম জামিন পেলেন ইমরানের স্ত্রী

– দৈনিক রংপুর নিউজ ডেস্ক –

প্রকাশিত: ১৬ মে ২০২৩  

Find us in facebook

Find us in facebook

কয়েকদিন আগে আল কাদির ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলায় গ্রেফতার হন পাকিস্তানের সাবেক প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান। এবং এই একই মামলার অপর আসামী হলেন তার স্ত্রী বুশরা বিবি। 

ইমরান খানের পর এবার জামিন পেলেন তার স্ত্রী বুশরা বিবি। লাহোর হাইকোর্ট থেকে এ মামলায় আগামী ২৩ মে পর্যন্ত জামিন পেয়েছেন তিনি। 

মামলায় জামিনের এর আগে ইমরান খানের আইনজীবী খাজা হারিসের মাধ্যমে পাকিস্তানের পাঞ্জাব প্রদেশের রাজধানী লাহোরের হাইকোর্টে জামিন আবেদন করেছিলেন বুশরা। 

সোমবার সেই আবেদনের ওপর শুনানি শেষে বিচারপতি শাহবাজ আলী রিজভি এবং বিচারপতি শাকিল আহমেদের একটি বেঞ্চ তার জামিন মঞ্জুর করেন।

হাইকোর্টের এজলাসে যখন এই জামিন আবেদনের ওপর শুনানি শুরু হয়, তখনও সেখানে এসে উপস্থিত হননি বুশরা বিবি। এতে অসন্তোষ প্রকাশ করেন আদালত।

বিচারপতি রিজভি এ সময় ইমরান-বুশরার আইনজীবী খাজা হারিসকে প্রশ্ন করেন, ‘পিটিশনার (বুশরা বিবি) কোথায়?’ জবাবে খাজা হারিস বলেন, ‘আমি খুবই দুঃখিত, কিছুক্ষণের মধ্যেই পিটিশনার এসে উপস্থিত হবেন।’

খাজা হারিসের এই উত্তরে অসন্তোষ জানিয়ে বিচারপতি রিজভি বলেন, ‘আদালতকে অপেক্ষায় রাখা কোনোভাবেই উচিত নয়। পিটিশনারকে বলে দেবেন— ভবিষ্যতে এ ধরনের আচরণ আর সহ্য করা হবে না।’

‘আমরা আপনাকে ২ টা ১৫ মিনিট পর্যন্ত সময় দিচ্ছি। যদি এর মধ্যে পিটিশনার না আসেন, তাহলে ঠিক ২ টা ১৬ মিনিটে এই আবেদন বাতিল করে দেওয়া হবে।’

সৌভাগ্যবশত, ২ টা ১৫ মিনিটের আগেই হাজির হন বুশরা বিবি।ও ইমরান খান। তারা এজলাসে উপস্থিত হওয়ার পর কঠোর নিরাপত্তার শুনানি শুরু হয়। শুনানি শেষে বুশরা বিবিকে ২৩ মে পর্যন্ত জামিন দেন আদালত।

মামলার প্রধান আসামি ইমরান খান ইতোমধ্যে জামিন পেয়েছেন। গত ১২ মে এই মামলায় ইমরান খানকে দু’সপ্তাহের জামিন দেন ইসলামাবাদ হাইকোর্ট।

উল্লেখ্য, ২০২১ সালের ১০ এপ্রিল পার্লামেন্টের বিরোধী সদস্যদের অনাস্থা ভোটে প্রধানমন্ত্রীর পদ হারান ইমরান খান। ক্ষমতায় আসে পাকিস্তান মুসলিম লীগ-নওয়াজের (পিএমএলএন) নেতৃত্বাধীন জোট সরকার।  

তার পর গত প্রায় দেড় বছরে দুর্নীতি, সন্ত্রাস ও উসকানিমূলক বক্তব্য দেওয়র অভিযোগে রাজধানী ইসলাবাদসহ পাকিস্তানজুড়ে বিভিন্ন পুলিশ স্টেশন ও আদালতে শতাধিক মামলা করা হয়েছে ইমরান খানের বিরুদ্ধে। তবে সেসব মামলার মধ্যে সম্প্রতি আলোচনায় উঠে এসেছে আল কাদির ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলা।

কারণ এই মামলায় জারি করা পরোয়ানার ভিত্তিতেই গত ৯ মে ইসলামাবাদ হাইকোর্ট থেকে ইমরান খানকে গ্রেফতার করে নিয়ে যায় পুলিশ, আধাসামরিক বাহিনী রেঞ্জার্স এবং পাকিস্তানের কেন্দ্রীয় তদন্ত সংস্থা ন্যাশনাল অ্যাকাউন্টিবিলিটি ব্যুরো’র (এনএবি) একটি দল। তারপর পাকিস্তানজুড়ে শুরু হয় নজিরবিহীন সহিংসতা এবং পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে এক পর্যায়ে সেনা নামাতে বাধ্য হয় পাকিস্তানের কেন্দ্রীয় সরকার।

Place your advertisement here
Place your advertisement here