• বৃহস্পতিবার   ০৬ অক্টোবর ২০২২ ||

  • আশ্বিন ২০ ১৪২৯

  • || ০৮ রবিউল আউয়াল ১৪৪৪

Find us in facebook
সর্বশেষ:
প্রধানমন্ত্রীর শেখ হাসিনার নেতৃত্বের প্রশংসায় ওয়াশিংটন পোস্ট নভেম্বরের শেষের দিকে জাপান সফর করবেন প্রধানমন্ত্রী জাতিসংঘ ভবনে সেমিনারে একাত্তরের গণহত্যার স্বীকৃতি দাবি জনগণের দ্বারপ্রান্তে সেবা নিশ্চিত করতে হবে: পানিসম্পদ উপমন্ত্রী ইউজিসির এপিএ মূল্যায়নের স্কোরিংয়ে হাবিপ্রবির দৃশ্যমান উন্নতি

‘ডিসেম্বরের মধ্যে তারের জঞ্জালমুক্ত নগরী ঢাকাবাসীকে উপহার দেব’   

– দৈনিক রংপুর নিউজ ডেস্ক –

প্রকাশিত: ১১ আগস্ট ২০২০  

Find us in facebook

Find us in facebook

ডিসেম্বরের মধ্যে ঢাকা দক্ষিণ সিটিকে তারের জঞ্জালমুক্ত করার কথা জানিয়েছেন সংস্থাটির মেয়র ব্যারিস্টার শেখ ফজলে নূর তাপস। গতকাল সোমবার দুপুরে ঢাকা মহানগর মহিলা কলেজে গভর্নিং বডির সভা শেষে সাংবাদিকদের সঙ্গে আলাপকালে এ কথা বলেন তিনি।

ডিএসসিসি মেয়র বলেন, আমরা বহির্বিশ্বে গিয়ে দেখি, আকাশের দিকে তাকালে কোন বাঁধা নেই। কিন্তু ঢাকা শহরে যখন আসি তখন দেখি শুধু বাঁধা আর বাঁধা, তারের জঞ্জাল। বহির্বিশ্বে আমরা তার সৌন্দর্য উপভোগ করে বলি, আহা কি সুন্দর! ঢাকায় এসে বলি, এত কেন জঞ্জাল আর জঞ্জাল! উপরে অবর্জনা, নিচেও আবর্জনা। তাই আমরা প্রশাসনিক সংস্কার করছি। প্রশাসনিক সংস্কারের মাধ্যমে সংস্থার আবর্জনা, জলাবদ্ধতার আবর্জনা, বর্জ্যরে আবর্জনাসহ উপরের দিকের তারের আবর্জনা পরিষ্কার-পরিচ্ছন্ন করার উদ্যোগ নিয়েছি। সকল তার অপসারণ করা হবে। সেটা কোন ইন্টারনেট সার্ভিস প্রোভাইডারের হোক বা কোন সরকারি সংস্থার হোক। পর্যায়ক্রমে সকল তার অপসারণ করা হবে। শুধু আবশ্যকীয় তার ছাড়া আমরা সকল তার অপসারণ করব। এই কার্যক্রম চলমান আছে, থাকবে।

ভ্রাম্যমাণ আদালত কাজ করছে জানিয়ে শেখ তাপস বলেন, এখানে শিথিলতার কোন সুযোগ নেই। আমাদের লক্ষ্য আগামী ডিসেম্বরের মধ্যেই তারের জঞ্জালমুক্ত একটি ঢাকা নগরী ঢাকাবাসীকে উপহার দেয়া।


উন্মুক্ত স্থানে আর বর্জ্য থাকবে না জানিয়ে ডিএসসিসি মেয়র বলেন, ঢাকাবাসীর কাছে আবারও আহ্বান জানাই, দিনের বেলা রাস্তায় উন্মুক্ত স্থানে বর্জ্য ফেলবেন না। দিনের সকল বর্জ্য সংরক্ষণ করে রাখুন, সন্ধ্যা ৬টার পর হতে তা আমাদের প্রাথমিক বর্জ্য সেবা সংগ্রহ সেবাদানকারী প্রতিষ্ঠানের পরিচ্ছন্নতাকর্মীর কাছে হস্তান্তর করুন। ৭৫টি ওয়ার্ডে ৭৫টি পিসিএসপিকে আমরা নতুন করে নিবন্ধন দিয়েছি, নিয়োগ দিয়েছি। তারা ঈদ-উল-আযহার পর থেকে কাজ শুরু করেছে।

Place your advertisement here
Place your advertisement here