• মঙ্গলবার   ২৯ নভেম্বর ২০২২ ||

  • অগ্রাহায়ণ ১৫ ১৪২৯

  • || ০৪ জমাদিউল আউয়াল ১৪৪৪

Find us in facebook
সর্বশেষ:
দশ টাকায় টিকিট কেটে চক্ষু পরীক্ষা করালেন প্রধানমন্ত্রী দেশের মানুষ দুর্নীতিবাজদের ফের ক্ষমতায় দেখতে চায় না: হানিফ সরকারি কর্মচারীদের পাঁচ বছর পরপর সম্পদের বিবরণী জমা দিতে হবে না আগামী অক্টোবরে চালু হবে থার্ড টার্মিনাল ব্যাংক খাতের পরিস্থিতি জানানোর নির্দেশ প্রধানমন্ত্রীর

ডিএনসিসির উদ্যোগে রাজধানীর ৪০ স্থানে বিনামূল্যে ডেঙ্গু পরীক্ষা   

– দৈনিক রংপুর নিউজ ডেস্ক –

প্রকাশিত: ২৪ জুন ২০২০  

Find us in facebook

Find us in facebook

করোনা সংক্রমণের এই পরিস্থিতিতে রাজধানীতে অসংখ্য লোক জ্বরে আক্রান্ত হচ্ছেন। জ্বর দেখা দিলেই নাগরিকরা করোনায় আক্রান্ত বলে ধারণা পোষণ করছেন। এ থেকে পরিত্রাণের জন্য ডেঙ্গু জ্বরে আক্রান্ত কিনা তা শনাক্ত করতে মোট ৪০টি স্বাস্থ্যকেন্দ্র ও মাতৃসদন কেন্দ্রে তা পরীক্ষা করার ব্যবস্থা করেছে ঢাকা উত্তর সিটি কর্পোরেশন (ডিএনসিসি)।

পরীক্ষাগুলো হচ্ছে এন এস ১, জিইএস এলজি এম, এলজিজি। শুক্রবার ছাড়া প্রতিদিন সকাল ৯টা থেকে দুপুর ২টা পর্যন্ত এসব নগর মাতৃসদন ও নগর স্বাস্থ্য কেন্দ্রে বিনামূল্যে ডেঙ্গু পরীক্ষা করা যাবে। তবে ডেঙ্গু পরীক্ষার জন্য অবশ্যই ডাক্তারের প্রেসক্রিপশন দেখাতে হবে।

বর্তমানে রোগের লক্ষণ না বুঝেই অনেক লোক গায়ে জ্বর এলেই করোনা মনে করে ঘরে বসেই করেনাার প্রকোপের মতো সাধারণ চিকিৎসা গ্রহণ করছেন। ফলে এসব রোগী কোন প্রকার চিকিৎসা ছাড়াই ধীরে ধীরে অসুস্থ হচ্ছেন। কেউ কেউ সময়মতো চিকিৎসা গ্রহণ না করায় মৃত্যুমুখেও পতিত হচ্ছেন। অথচ হাসপাতালে যাওয়ার পর পরীক্ষা করে দেখা যাচ্ছে এসব রোগী করোনায় আক্রান্ত নন ডেঙ্গু জ্বরে আক্রান্ত। তাই এ থেকে পরিত্রাণের জন্য অনুমান নির্ভর চিকিৎসা না করে দ্রুত চিকিৎসকের পরামর্শ নেয়ার কথা বলছেন চিকিৎসকরা।

ডিএনসিসির স্বাস্থ্য শাখা সূত্রে জানা গেছে, সুনির্দিষ্ট লক্ষণ ছাড়া কোন রোগ কে ডিএনসিসির নির্ধারিত স্বাস্থ্যকেন্দ্রে ডেঙ্গু জ্বরের পরীক্ষা করা হবে না। তাছাড়া বেশ কিছু রোগীর লক্ষণ দেখে করোনায় আক্রান্ত নাকি ডেঙ্গুতে আক্রান্ত তা বোঝা কঠিন হয়ে পড়ে। তবে ডেঙ্গু জ্বরে আক্রান্তদের শরীরে যেসব লক্ষণ দেখা দেয় তা নির্দিষ্ট থাকায় এসব লক্ষণ দেখা দিলেই কেবল এসব কেন্দ্রে গিয়ে পরীক্ষা করা যাবে। অন্যথায় জ্বরে আক্রান্ত যে কোন রোগীকে নিশ্চিত না হয়ে পরীক্ষা না করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে ডিএনসিসি কর্তৃপক্ষ। এসব কেন্দ্রে আসা রোগীদের জিজ্ঞাসাবাদ শেষেই কেবল স্বাস্থ্যকর্মীরা ডেঙ্গু জ্বরের পরীক্ষা করছেন। জানা গেছে, ডেঙ্গু জ্বর পরীক্ষার জন্য ডিএনসিসি কর্তৃপক্ষ প্রতিটি কেন্দ্রে পর্যাপ্ত পরিমাণ কিট রেখেছে। এছাড়া পূর্বে ডিএনসিসির সীমানায় ২৭টি কেন্দ্রে ডেঙ্গু পরীক্ষার ব্যবস্থা থাকলেও নাগরিকদের কথা বিবেচনায় তা বাড়িয়ে ৪০টি করা হয়েছে। এছাড়া বেসরকারী স্বাস্থ্য সংশ্লিষ্ট এনজিওদের সঙ্গে কথা বলে ডেঙ্গু পরীক্ষার কেন্দ্র আরও বাড়ানোর পরিকল্পনা নিয়েছে সংস্থাটি। করোনার ন্যায় ডেঙ্গু জ্বর যাতে চলতি বছরে মহামারী আকার ধারণ না করে সেজন্য নাগরিক স্বাস্থ্য সুরক্ষায় অধিক পরিমাণে ডেঙ্গু পরীক্ষার উদ্যোগ গ্রহণ করা হচ্ছে।

যেসব স্থানে ডেঙ্গুর জ্বর পরীক্ষা করা যাবে \ সূর্যের হাসি ক্লিনিক, বাড়ি নং ১, রোড ৯, বøক-ডি, সেকশন-১২, মিরপুর, বাড্ডা এমসিএইচএফপি সেন্টার, সেকশন-১০, মিরপুর, সূর্যের হাসি ক্লিনিক, রোড ১, বøক-এ, সেকশন-১৩ (হারম্যান মেইনার স্কুল এ্যান্ড কলেজ সংলগ্ন), মিরপুর,সূর্যের হাসি ক্লিনিক, হোল্ডিং নং গ-১০৭৬, ঈদগাহ জামে মসজিদ রোড, শাহজাদপুর, সূর্যের হাসি নেটওয়ার্ক, হাউস নং ৪৫, রোড নং ২, বøক-এ, আফতাবনগর সূর্যের হাসি ক্লিনিক, ৪৬৬/১ শাহিনবাগ, (পশ্চিম নাখাল পাড়া), গোলারটেক, দারুস সালাম থানা মাঠ, মিরপুর-১; ২৬/এ, আহম্মেদনগর, পাইকপাড়া, মিরপুর-১; ২৭৭/১, মধ্য পীরেরবাগ, মিরপুর, ৬৭৪/১, পশ্চিম শেওড়াপাড়া, মিরপুর; ১৩৬, তেজকুনিপাড়া, ফার্মগেট, তেজগাঁও, ৫২/এ, পশ্চিম রাজাবাজার, শেরে বাংলানগর, বাড়ি নং ৩২৪, রোড নং ৩, বায়তুল আমান হাউজিং সোসাইটি, আদাবর।

নগর মাতৃসদন, বাড়ি-১১, রোড-১১, সেক্টর-৬, উত্তরা, নগর স্বাস্থ্য কেন্দ্র-১, বাড়ি-৯২, রোড-১২, সেক্টর-১০, উত্তরা মডেল টাউন, নগর স্বাস্থ্য কেন্দ্র-২, কবরস্থানের উত্তর পূর্ব পাশে, রোড-১০/এফ, সেক্টর-৪, উত্তরা মডেল টাউন, নগর স্বাস্থ্য কেন্দ্র-৩, ২৩৫/২৩৬, দারোগা বাড়ি, মধুপুর চৌরাস্তা ফায়দাবাদ, উত্তরা মডেল টাউন, নগর স্বাস্থ্য কেন্দ্র-৪, ১৫০ আশকোনা মেডিক্যাল রোড, এয়ারপোর্ট, নগর স্বাস্থ্য কেন্দ্র-৫, ১৩৪/৪ কাজী বাড়ি রোড, কুড়িল চৌরাস্তা, কুড়িল, নগর স্বাস্থ্য কেন্দ্র-৬, বাড়ি ৩২৫ আনিচবাগ, কলেজ রোড, চেয়ারম্যান বাড়ি, ঢাকা। নগর মাতৃসদন, জে-২, বর্ধিত পল্লবী, ভোলা বস্তির উল্টো দিকে, মিরপুর সাড়ে ১১, নগর স্বাস্থ্য কেন্দ্র-১, বাড়ি-৯, বøক-ই, রোড-৬, আরামবাগ (আ/এ), সেকশন-৭, মিরপুর, নগর স্বাস্থ্য কেন্দ্র-২, জে-২, বর্ধিত পল্লবী, ভোলা বস্তির উল্টো দিকে, মিরপুর সাড়ে ১১। নগর স্বাস্থ্য কেন্দ্র-৩, বাড়ি-৬, বøক-এফ, রোড-৩, সেকশন-২, মিরপুর, নগর স্বাস্থ্য কেন্দ্র-৪, বøক-এফ, রোড-৬, সেকশন-১, মিরপুর, এছাড়া নগর মাতৃসদন, নয়াটোলা পার্কের সামনে, গ্রিনওয়ে রোড, নয়াটোলা, মগবাজার। নগর স্বাস্থ্য কেন্দ্র-২, ৫৯৯ বড় মগবাজার, নগর স্বাস্থ্য কেন্দ্র-৩, ৫৯৪ মধুবাগ, মগবাজার, নগর স্বাস্থ্য কেন্দ্র-৪, মহাখালী গ/১৬/এ, আমতলা, নগর স্বাস্থ্য কেন্দ্র-৫, ১৭১ উত্তর বাড্ডা, নগর মাতৃসদন, ৪/বি/বি, দ্বিতীয় কলোনি, মাজার রোড, মিরপুর-১, নগর স্বাস্থ্য কেন্দ্র-১, নেকি বাড়ির টেক, ২য় কলোনি, হরিরামপুর, মিরপুর-১, নগর স্বাস্থ্য কেন্দ্র-২, বাড়ি-২৭, রোড-১১, কল্যাণপুর, নগর স্বাস্থ্য কেন্দ্র-৩, ১৯২/১ মধ্য পাইকপাড়া, মিরপুর-১, ঢাকা। নগর স্বাস্থ্য কেন্দ্র-৪, ৫৯১ উত্তর কাফরুল, চেয়ারম্যান বাড়ি, ঢাকা ক্যান্টনমেন্ট, নগর স্বাস্থ্য কেন্দ্র-৫, ৩৮৬ মুন্সি বাড়ি রোড, উত্তর ইব্রাহিমপুর, নগর মাতৃসদন, ৩/৫ খ, বাঁশবাড়ি, মোহাম্মদপুর, নগর স্বাস্থ্য কেন্দ্র-৩, ৬৫/ভি, নুরজাহান রোড, মোহাম্মদপুর, নগর স্বাস্থ্য কেন্দ্র-৬, পাল সমিতি, রায়েরবাজার, নগর স্বাস্থ্য কেন্দ্র-৭, ৬৪ পশ্চিম আগারগাঁও।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে ঢাকা উত্তর সিটি কর্পোরেশনের (ডিএনসিসি) প্রধান স্বাস্থ্য কর্মকর্তা ব্রিগেডিয়ার জেনারেল মমিনুল হক মামুন বলেন, এডিস মশার কামড়ে আক্রান্ত নাগরিকদের ডেঙ্গু হয়েছে কি না তা শনাক্ত করতে নগরীর মোট ৪০টি স্বাস্থ্যসেবা কেন্দ্রে সম্পূর্ণ বিনামূল্যে পরীক্ষার উদ্যোগ নিয়েছি। আমরা অধিক পরিমাণ লোকের সেবা তাদের দ্বোরগোড়ায় পৌঁছে দিতে ও রোগীর সেবা প্রদান করতে এমন উদ্যোগ গ্রহণ করেছি। এর বাইরে নতুন আরও বেশকিছু স্থানে ডেঙ্গু পরীক্ষা কেন্দ্র স্থাপনের পরিকল্পনা নিয়েছি। আমরা চাই কোন ব্যক্তি ডেঙ্গুতে আক্রান্ত হলে যেন এই পরীক্ষাটি করে নিশ্চিত হতে পারেন তিনি ডেঙ্গু জ্বরে আক্রান্ত কি না? আর সঙ্গে সঙ্গেই এ পরীক্ষার ফলাফল জানা যাবে। এজন্য পর্যাপ্ত পরিমাণ কিট দেয়া হয়েছে কেন্দ্রগুলোতে তবে শুক্রবার ছাড়া প্রতিদিন সকাল ৯টা থেকে দুপুর ২টা পর্যন্ত এসব নগর মাতৃসদন ও নগর স্বাস্থ্য কেন্দ্রে পরীক্ষার জন্য রোগীকে অবশ্যই ডাক্তারের প্রেসক্রিপশন নিয়ে আসতে হবে। এছাড়া বর্ষার এ মৌসুমে এডিস মশার বিস্তার ও ডেঙ্গুর প্রকোপ রোধে একে পূর্ণ নিয়ন্ত্রণে আনতে আমরা মশক বিরোধী ডোর টু ডোর ভিত্তিক চিরুনি অভিযান সম্পন্ন করেছি। বর্তমানে চলতি সপ্তাহজুড়ে আমাদের সীমানায় অবস্থিত প্রায় ২ শতাধিক হাসপাতালে অভিযান পরিচালনা করছি। তবে নাগরিকদের ডেঙ্গুরোধে আমাদের অধিক সচেতন হতে হবে। এজন্য তিনি সবার সহযোগিতা কামনা করেন।

Place your advertisement here
Place your advertisement here