ব্রেকিং:
করোনাভাইরাসের সংক্রমণ ঠেকাতে টিকা নিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা
  • শনিবার   ০৬ মার্চ ২০২১ ||

  • ফাল্গুন ২১ ১৪২৭

  • || ২২ রজব ১৪৪২

Find us in facebook
সর্বশেষ:
আরো ৪ কোটি ডোজ টিকা কেনার চেষ্টা চালাচ্ছে বাংলাদেশ পঞ্চম ধাপে ভাসানচরে পৌঁছেছেন আরো ১ হাজার ৭৫৯ রোহিঙ্গা সরকারের আশ্রয়ণ প্রকল্প: গাইবান্ধায় ঠিকানা পেল ৫০ সাঁওতাল পরিবার মার্কিন গণমাধ্যমে বাংলাদেশের উন্নতির ভূয়সী প্রশংসা আত্মরক্ষায় মার্শাল আর্ট শিখছে তেঁতুলিয়ার কিশোরীরা

হারাগাছ পৌর নির্বাচন: প্রচারণায় ব্যস্ত সময় পার করছেন প্রার্থীরা 

– দৈনিক রংপুর নিউজ ডেস্ক –

প্রকাশিত: ১৯ ফেব্রুয়ারি ২০২১  

Find us in facebook

Find us in facebook

পঞ্চম ধাপের পৌর নির্বাচনকে সামনে রেখে হারাগাছ পেীর নগর ভাসছে জমজমাট প্রচারণায়। পাল্টা দিয়ে চলছে প্রতিশ্রুতির বন্যা। মাত্র নয়দিন পরেই ২৮শে ফেব্রুয়ারী ২০২১ইং হারাগাছ পৌরসভা নির্বাচন। এ নিয়ে পৌর জুড়ে চলছে জল্পনা আর কল্পনা। কে হবেন এই পৌর পিতা।

তৃতীয় শ্রেনীর এই পৌরসভা নির্বাচনে তিনজন মেয়র পদে লড়ছেন। আওয়ামী লীগ মনোনিত প্রার্থী বর্তমান মেয়র মোঃ হাকিবুর রহমান, বিএনপির মনোনীত প্রার্থী মোঃ মোনায়েম হোসেন ফারুক এবং স্বতন্ত্র প্রার্থী মোঃ এরশাদুল হক (এরশাদ)। অন্য দিকে নয়টি ওয়ার্ডের সাধারন কাউন্সিলর ৪৮জন, সংরক্ষিত মহিলা ওয়ার্ডে ১০জন প্রার্থী প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন।

হারাগাছ পৌরসভা কার্যালয় সূত্রে জানা যায় ১৯৮৯ইং সালে হারাগাছ পৌরসভা প্রতিষ্ঠিত হলেও আজ অবধি তা তৃতীয় শ্রেণীর মর্যাদায় রয়েছে। বর্তমানে মোট ভোটার সংখ্যা ৪৯,০১৭ জন। তন্মধ্যে নারী ভোটার ২৫,৩২৪জন ও পুরুষ ভোটার ২৩,৬৯৩ জন।।

স্থানীয়রা মনে করেন, পৌরসভার উন্নয়নে কাজ করবেন এমন প্রার্থীকে এবার বেছে নিতে হবে। দিন রাত প্রচার- প্রচারনা ব্যস্ত সময় পার করছেন প্রার্থীরা। পাড়া-মহল্লায় ঝুলছে পোষ্টার। মাইকে মাইকে নির্বাচনী প্রচারণায় মুখরিত হয়ে উঠেছে পৌরসভার প্রতিটি অলিগলি। ফাল্গুনের নাতিশীতোষ্ণ আবহাওয়ায় ঋতুরাজ বসন্তের আমেজে ছুটে চলছেন মেয়রসহ কাউন্সিলর প্রার্থীরা। আর দিয়ে যাচ্ছেন নানান প্রতিশ্রুতি। তবে বড় দুই দলের মেয়র প্রার্থীদের হাড্ডাহাড্ডি লড়াই হওয়ার কথা থাকলেও স্বতন্ত্র ও আওয়ামী লীগ বিদ্রোহী প্রার্থী জনমনে যথেষ্ঠ সাড়া ফেলেছেন বলে মনে করেন অনেকেই।

পৌর সভার নতুন বাজারের বাসিন্দা দিদার হোসেনসহ আরও অনেকে বলেন, তৃতীয় শ্রেণীর পৌর শহর হলেও উন্নয়নের কোন লেশ মাত্র দেখা যায় না। বিশেষ করে পৌর সভার অলিগুলর রাস্তাঘাট জরাজীর্ন অবস্থায় পড়ে আছে। খানা খন্দে ভরে গেছে। বর্ষা মৌসুমে অলিগলি গুলো পানিতে ভরপুর হয়ে থাকে। নেই কোন পানি নিষ্কাষনের সু-ব্যবস্থা। যা জনগনের যথেষ্ঠ দূর্ভোগের সৃষ্টি করে। অধিকাংশ রাস্তায় বৈদ্যুতিক বাতি না থাকায় সন্ধ্যার পর সৃষ্টি হয় ভূতুড়ে অবস্থা। পৌর সভার ডাস্টবিনসহ বাজার ঘাটের কোন প্রকার সংস্কার কিংবা সংযোজন হয় নাই।

একই কথা বলেন পাইকার বাজারের বাসিন্দা বকুল মিয়াসহ আরও অনেকেই। অটো রিকশা চালক জাহাঙ্গীর আলম, ছায়াদ বলেন এমন প্রার্থীকে ভোট দেওয়া উচিত যার দ্বারা পৌরসভার রাস্তা ঘাটের উন্নয়ন হবে। 

Place your advertisement here
Place your advertisement here