• বৃহস্পতিবার   ১৩ মে ২০২১ ||

  • বৈশাখ ৩০ ১৪২৮

  • || ৩০ রমজান ১৪৪২

Find us in facebook
সর্বশেষ:
পবিত্র ঈদুল ফিতর উপলক্ষে আজ বৃহস্পতিবার সন্ধ্যা ৭:১৫ মিনিটে জাতির উদ্দেশ্যে শুভেচ্ছা ভাষণ দিবেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। অসহায়-দুস্থ মানুষের কল্যাণে সহায়তার হাত বাড়িয়ে দিয়েছে সরকার হিলি বন্দরে ৪দিন আমদানি-রপ্তানি বন্ধ নীলফামারীতে শতাধিক শিশু পেল ঈদ উপহার এসপির ঈদ উপহার ও খাবার পেল রংপুরের সেই বৃদ্ধা

রোজায় যে খাবারগুলো অবশ্যই এড়িয়ে চলবেন 

– দৈনিক রংপুর নিউজ ডেস্ক –

প্রকাশিত: ২৫ এপ্রিল ২০২১  

Find us in facebook

Find us in facebook

চলছে গ্রীষ্মকাল। দিন দিন বাড়ছে তাপমাত্রা। এই অসহ্য গরমের সঙ্গে সঙ্গে বাড়ছে মানুষের ভোগান্তিও। এর মধ্যেই শুরু হয়েছে পবিত্র মাহে রমজান। এই তীব্র গরমে রোজা রেখে নিজেকে সুস্থ রাখাটা এখন বড় একটা চ্যালেঞ্জ।
তবে প্রকৃতির এই আবহাওয়ার ওপর আপনার হাত না থাকলেও খাদ্যাভ্যাসের মাধ্যমে এই কঠিন সময়ে আপনি পেতে পারেন স্বস্তি।

ভারতের জীবনধারা ও স্বাস্থ্যবিষয়ক ওয়েবসাইট বোল্ডস্কাইয়ের এক প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, রোজা ও গরমকালে কিছু খাবার এড়িয়ে চলা উত্তম। চলুন তবে সেসব সম্পর্কে বিস্তারিত জেনে নেয়া যাক-

তৈলাক্ত খাবার

অয়েলি ও জাঙ্ক ফুড, যেমন অতিরিক্ত ভাজা খাবার অস্বাস্থ্যকর বিবেচিত। এটি শুধু গ্রীষ্মকালেই নয়, সব ঋতুতে ক্ষতিকর। তৈলাক্ত খাবার গরমকালে খেলে তা শরীরের তাপমাত্রা বাড়াবে এবং ইমিউনিটি কমাবে। সেই সঙ্গে রোজায় এই খাবারগুলো শরীর ক্লান্ত করে দেয়।

গ্রিলড মিট

গ্রিলড মিট উচ্চ তাপমাত্রায় রান্না করা হয়। যেখানে বাইরের আবহাওয়া উষ্ণ, সেখানে এমন খাবার স্বাস্থ্যের জন্য ক্ষতিকর হতে পারে। এটি শরীরের তাপমাত্রা বাড়াবে। এমনকি ক্যান্সারের ঝুঁকিও বৃদ্ধি করে।

প্রক্রিয়াজাত খাবার

অধিকাংশ সস ও প্রক্রিয়াজাত খাবারে অতি মাত্রায় লবণ, প্রিজারভেটিভ ও কৃত্রিম ফ্লেভার যেমন- মনোসোডিয়াম গ্লুটামেট থাকে। যদি এসব নিয়মিত খান, তবে আপনার শরীরের তাপমাত্রা বাড়বে। এটি স্বাস্থ্যের পক্ষে ক্ষতির কারণ হতে পারে।

অ্যালকোহল

অনেকে গরমকালে বরফ দিয়ে অ্যালকোহল পান করে স্বস্তির জন্য। কিন্তু মনে রাখা দরকার, শরীরের তাপমাত্রা দ্রুত বৃদ্ধি করে অ্যালকোহল। গরমকালে অ্যালকোহলের কারণে ডিহাইড্রেশন হতে পারে, কমতে পারে রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা। এর সঙ্গে নানা রোগ হতে পারে। তাই এসময় অ্যালকোহল পরিত্যাগ করা উচিত। আর রোজায় তো ভুলেও অ্যালকোহল খাবেন না।

উষ্ণ পানীয়

বেশির ভাগ মানুষ দিন শুরু করে কফি বা চা দিয়ে। যদিও এই অভ্যাস আপনাকে স্বস্তি এনে দেয়, তবে গরমকালে নিয়মিত কপি ও চা পান শরীরের তাপমাত্রা বাড়ায় এবং ডিহাইড্রেশনের কারণ হতে পারে। এ সময় গ্রিন টি বা আইসড কফি খেতে পারেন।

আসন্ন দিনগুলোতে তাপমাত্রা আরও বাড়বে। তাই খাদ্যাভ্যাসে বদল আনা জরুরি। ফল ও শাকসবজি শরীরকে শীতল করে। তাই এই তীব্র গরম ও রোজায় নিজেকে সুস্থ রাখতে স্বাস্থ্যকর খাবার খান।

Place your advertisement here
Place your advertisement here