ব্রেকিং:
দিনাজপুরে গত ২৪ ঘণ্টায় ৫ জন ব্যক্তি করোনা ভাইরাসে (কোভিড-১৯) আক্রান্ত হয়েছেন। এ নিয়ে জেলায় মোট আক্রান্তের সংখ্যা দাঁড়ালো ৩৩৭৯ জনে। মঙ্গলবার বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন দিনাজপুরের সিভিল সার্জন ডাঃ মোঃ আব্দুল কুদ্দুছ।
  • বুধবার   ৩০ সেপ্টেম্বর ২০২০ ||

  • আশ্বিন ১৪ ১৪২৭

  • || ১২ সফর ১৪৪২

Find us in facebook
সর্বশেষ:
মানুষ যেন ভল থাকে সেই কাজটুকু যেন করতে পারি- প্রধানমন্ত্রী প্রধানমন্ত্রীর জন্মদিন উপলক্ষে রংপুরে যুবলীগের খাবার বিতরণ দিনাজপুরে নতুন আরো ৫ জন করোনায় আক্রান্ত দেশ ভালোভাবে চলছে তাই বিএনপির এতো গাত্রদাহ- কাদের করোনা মোকাবেলায় মার্কেল জেসিন্ডাকে ছাড়িয়ে শেখ হাসিনা
৬৬

রংপুরের পীরগাছায় পাট চাষে আগ্রহ বাড়ছে কৃষকদের 

– দৈনিক রংপুর নিউজ ডেস্ক –

প্রকাশিত: ৬ আগস্ট ২০২০  

Find us in facebook

Find us in facebook

আবহাওয়া অনুকূলে থাকায় পাটের ফলন ভালো হয়েছে এবার। দামও ভালো পাওয়ায় রংপুরের পীরগাছায় পাট চাষে আগ্রহ বাড়ছে কৃষকদের। ইতোমধ্যে কৃষকরা ক্ষেত থেকে পাট কাটা ও পচানো (জাগ) পাট থেকে আঁশ ছাড়াতে ব্যস্ত সময় পার করছেন। বৃহস্পতিবার (৬ আগস্ট) দুপুরে সরেজমিন ঘুরে এমন চিত্র দেখা গেছে।
 

বৃহস্পতিবার (৬ আগস্ট) সরেজমিনে দেখা যায়, উপজেলার বেশির ভাগ এলাকায় ক্ষেত থেকে পাট কাটা হচ্ছে। কোথাও মাঠ থেকে কাটা পাট অন্যত্র নিয়ে যাওয়া হচ্ছে। কোথাও চলছে পাট পচানোর প্রস্তুতি। আবার পচানো পাট থেকে আঁশ ছাড়ানোর কাজও চলছে।

কৃষকদের সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, কয়েক বছর আগেও কৃষকরা পাট চাষ করে লোকসানে পড়েছিলেন। তাই অনেকে বাধ্য হয়ে অন্য ফসলের দিকে ঝুঁকে পড়েন। স্বল্প পরিসরে যারা আবাদ ধরে রেখেছিলেন, তারাই এ বছর লাভবান হয়েছেন। তাদের দেখে অন্যরা আবারো পাট চাষে আগ্রহ দেখাচ্ছেন। বর্তমানে কৃষকরা খুব সহজে ও ভালো দামে পাট বিক্রি করতে পারছেন।

উপজেলার ছাওলা ইউনিয়নের কৃষক আবুল হোসেন এবার তিন বিঘা জমিতে পাট চাষ করেছেন। তিনি জানান, পাটের আবাদ বেড়েছে। অনুকূল আবহাওয়ায় ফলনও ভালো হয়েছে।

দেবী চৌধুরাণীর হাটের পাইকারি পাট ব্যবসায়ী লোকমান হোসেন জানান, হাটে প্রচুর পাট আসতে শুরু করেছে। বাজার দরও ভালো। কৃষকরা ভালো দাম পাবেন বলে আশা করা হচ্ছে।

পীরগাছা উপজেলা কৃষি বিভাগ সূত্র জানায়, চলতি বছরে উপজেলায় ৪০০ হেক্টর জমিতে পাটের চাষাবাদ হয়েছে। আবহাওয়া অনুকূলে থাকায় ফলনও অনেক ভালো হয়েছে। প্রতি হেক্টর জমিতে এক দশমিক ৯ মেট্রিক টন পাট উৎপন্ন হয়েছে। অন্যান্য বছরের তুলনায় বাজারে দামও ভালো পাওয়া যাচ্ছে।

গত বছর ১৮০০ টাকা মণ দরে পাট বিক্রি হয়েছে। তবে চলতি মৌসুমের শুরুতে ২১০০ টাকা মণ দরে পাট বিক্রি হচ্ছে।

পীরগাছা উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা শামীমুর রহমান জানান, চলতি বছর উপজেলায় ৪০০ হেক্টর জমিতে পাট চাষ হয়েছে। গত বছরের তুলনায় এবার উৎপাদন বেশ ভালো হয়েছে। বাজারে দাম ভালো থাকায় পাট চাষে কৃষকদের আগ্রহ আরও বাড়বে।

Place your advertisement here
Place your advertisement here
রংপুর বিভাগের পাঠকপ্রিয় খবর