ব্রেকিং:
করোনাভাইরাসের সংক্রমণ ঠেকাতে টিকা নিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা
  • শুক্রবার   ০৫ মার্চ ২০২১ ||

  • ফাল্গুন ২০ ১৪২৭

  • || ২১ রজব ১৪৪২

Find us in facebook
সর্বশেষ:
উন্নয়ন প্রকল্পে বেরোবি ভিসির অনিয়মের প্রমাণ পেয়েছে ইউজিসি ভারতের পররাষ্ট্রমন্ত্রী ঢাকা আসছেন বৃহস্পতিবার করোনা: দেশে আপাতত টিকার ট্রায়াল হচ্ছে না করোনা: দেশে আপাতত টিকার ট্রায়াল হচ্ছে না প্রথম ধাপে কোভ্যাক্সের এক কোটি ৯ লাখ টিকা পাচ্ছে বাংলাদেশ

মুজিববর্ষের উপহার: পাকা ঘর পাচ্ছে আরো ১৩৫১ গৃহহীন পরিবার

– দৈনিক রংপুর নিউজ ডেস্ক –

প্রকাশিত: ২১ ফেব্রুয়ারি ২০২১  

Find us in facebook

Find us in facebook

খুলনার ৯ উপজেলায় আরো এক হাজার ৩৫১ গৃহহীন পরিবার পাচ্ছে ঘর। বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশতবার্ষিকী উপলক্ষে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার উপহার হিসেবে তারা এ ঘর পাবে। আশ্রয়ণ প্রকল্পের আওতায় দ্বিতীয় ধাপের এসব ঘরের সঙ্গে প্রত্যেক ভূমিহীন দুই শতক করে জমি পাবেন। ৭ এপ্রিলের মধ্যে ঘরের নির্মাণ কাজ শেষ হবে। প্রথম ধাপে খুলনায় ৯২২ ভূমিহীন পরিবারকে ঘর দেয়া হয়।

জানা গেছে, দ্বিতীয় ধাপের ঘরগুলোর নকশা কিছু পরিবর্তন হচ্ছে। প্রথম ধাপের প্রতি ঘরের জন্য এক লাখ ৭৫ হাজার টাকা ব্যয় হয়। দ্বিতীয় ধাপে প্রতিটি ঘরের জন্য আরো ২০ হাজার টাকা বাড়িয়ে দেয়া হয়েছে। প্রথম ধাপের ঘর দেয়ার পর বিদেশি কূটনৈতিকরা প্রধানমন্ত্রীর এ উদ্যোগকে স্বাগত জানান। 

খুলনা জেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে ভূমিহীন এক হাজার ৩৫১ পরিবারের নাম আশ্রয়ণ-২ প্রকল্পে পাঠানো হয়েছে। দ্বিতীয় ধাপে ডুমুরিয়ায় ৫শ’, পাইকগাছায় ৩শ’, রূপসায় ২১৫, দাকোপে ২শ’, তেরখাদায় ৪০, দিঘলিয়া, বটিয়াঘাটা ও কয়রায় ৩০টি করে এবং ফুলতলা উপজেলায় ছয়টি গৃহহীন পরিবার ঘর পাবেন।

তেরখাদার ইউএনও সাদিয়া ইসলাম জানান, দ্বিতীয় ধাপের জন্য উপজেলা সদর, সাচিয়াদাহ ও ছাগলাদাহ ইউপির ঘর নির্মাণের বিষয়টি প্রাথমিকভাবে চূড়ান্ত করা হয়েছে। ভূমিহীনদের তালিকা দিতেও ইউপি চেয়ারম্যানদের বলা হয়েছে। প্রথম ধাপে শুধুমাত্র ছাগলাদাহ ইউনিয়নে ৪০টি ভূমিহীন পরিবার ঘর পায়।

রূপসার ইউএনও নাসরিন আক্তার জানান, আইচগাতী, শ্রীফলতলা, টিএস বাহিরদিয়া, ঘাটভোগ ও নৈহাটী ইউনিয়নে দ্বিতীয় ধাপে ভূমিহীনদের জন্য ঘর নির্মাণ করা হবে। প্রথম ধাপে এখানে ৭২টি গৃহহীন পরিবার মাথা গোঁজার ঠাঁই পেয়েছে।

ফুলতলার ইউএনও সাদিয়া আফরিন জানান, দামোদর ইউনিয়নে দ্বিতীয় ধাপের ঘর নির্মাণের জন্য স্থান চূড়ান্ত করা হয়েছে। ৭ এপ্রিলের মধ্যে নির্মাণ কাজ সম্পন্ন হবে। প্রথম ধাপে উপজেলার চারটি ইউনিয়নে ৪০টি গৃহহীন পরিবার প্রধানমন্ত্রীর এ উপহার পেয়েছেন।

দিঘলিয়ার ইউএনও মাহবুব আলম জানান, ৩০টি গৃহহীন পরিবার দ্বিতীয় ধাপে ঘর পাবে। বারাকপুর ও দিঘলিয়া ইউনিয়নে স্থান নির্বাচন করা হয়েছে। প্রথম ধাপে ৭০টি গৃহহীন পরিবার ঘর পায়।

দাকোপ এর ইউএনও মিন্টু বিশ্বাস জানান, সুতারখালী, কৈলাশগঞ্জ, বানিশান্তা ও দাকোপ ইউনিয়নের ২শ’ ভূমিহীন পরিবারকে প্রধানমন্ত্রীর উপহার দেয়ার জন্য তালিকাভুক্ত করা হয়েছে। প্রথম ধাপে তিলডাঙ্গা, পানখালী, বাজুয়া, লাউডোব ও বানিশান্তা ইউপির ১৪০টি গৃহহীন পরিবার ঘর পায়। গৃহহীনদের দলিল হস্তান্তর করা হয়েছে।

ঘর হারাদের নতুন স্বপ্ন ভূমিহীন-গৃহহীন পরিবারগুলোকে পুনর্বাসনের লক্ষ্যে ১৯৯৭ সালে প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয় থেকে আশ্রয়ণ নামে একটি প্রকল্প গ্রহণ করা হয়। প্রকল্পটি প্রধানমন্ত্রীর প্রত্যক্ষ তত্ত্বাবধায়নে পরিচালিত হচ্ছে। ভূমিহীন, গৃহহীন, অসহায় ও দরিদ্র জনগোষ্ঠীর পুনর্বাসন, তাদের ঋণ প্রদান, প্রশিক্ষণের মাধ্যমে জীবন-জীবিকা নির্বাহে সক্ষম করে তোলা এবং আয় বর্ধক কার্যক্রম সৃষ্টির মাধ্যমে দারিদ্র দূর করাই এ প্রকল্পের লক্ষ্য।

Place your advertisement here
Place your advertisement here