ব্রেকিং:
রংপুর মেডিকেল কলেজের (রমেক) পিসিআর ল্যাবে গত ২৪ ঘণ্টায় ১৮৮টি নমুনা পরীক্ষা করে ৩৫ জনের করোনা শনাক্ত হয়েছে। সোমবার রংপুর মেডিকেল কলেজের (রমেক) অধ্যক্ষ অধ্যাপক ডা. একেএম নুরুন্নবী লাইজু এসব তথ্য নিশ্চিত করে বলেন- রমেকের অণুজীব বিজ্ঞান বিভাগের পিসিআর ল্যাবে ১৮৮ জনের নমুনা পরীক্ষা করা হয়। এতে রংপুরে ২৫ জন, গাইবান্ধায় ৬, কুড়িগ্রামে ২ এবং লালমনিরহাটে ২ জনের নমুনায় করোনা শনাক্ত হয়। দেশে করোনাভাইরাসে গত ২৪ ঘণ্টায় আরো ৩৯ জনের মৃত্যু হয়েছে। এ নিয়ে মোট মারা গেলেন ২ হাজার ৩৯১ জন। এছাড়া নতুন করে আক্রান্ত হয়েছেন ৩ হাজার ৯৯ জন। এ নিয়ে মোট আক্রান্তের সংখ্যা ১ লাখ ৮৬ হাজার ৮৯৪ জন।
  • সোমবার   ১৩ জুলাই ২০২০ ||

  • আষাঢ় ২৯ ১৪২৭

  • || ২২ জ্বিলকদ ১৪৪১

Find us in facebook
সর্বশেষ:
রংপুরে চিকিৎসাধীন অবস্থায় করোনা আক্রান্ত মুক্তিযোদ্ধার মৃত্যু অনুমতি দেয়া পাঁচ বেসরকারি হাসপাতাল ও ডায়াগনস্টিক সেন্টারের কোভিড-১৯ পরীক্ষা স্থগিত রাখার নির্দেশ দিয়েছে স্বাস্থ্য অধিদফতর ২০২০ সালে নিবন্ধিত হজযাত্রীদের জন্য ৮ নির্দেশনা দিয়েছে ধর্ম মন্ত্রণালয় বন্যার সার্বিক পরিস্থিতি সার্বক্ষণিকভাবে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা খোজ খবর নিচ্ছেন-পানিসম্পদ উপমন্ত্রী মানবদেহে কোভিড ভ্যাকসিনের সফল প্রয়োগের দাবি রাশিয়ার!
১৪৭

মিঠাপুকুরে আবাসন প্রকল্পে আগুন,পুড়ে ছাই ১০টি ঘর

– দৈনিক রংপুর নিউজ ডেস্ক –

প্রকাশিত: ৩ নভেম্বর ২০১৯  

Find us in facebook

Find us in facebook

রংপুরের মিঠাপুকুরের বিনোদপুর আবাসন প্রকল্পে আগুনের ঘটনায় ১০টি ঘর পুড়ে গেছে। এতে ১৫ লাখ টাকার দাবি করছেন ভুক্তভোগীরা।

শনিবার দুপুরে উপজেলার দুর্গাপুর ইউপিতে এ ঘটনা ঘটে। এরপর থেকে প্রায় শিশু-নারীসহ অর্ধশত মানুষ খোলা আকাশেল নিচে বসবাস করছে।

ক্ষতিগ্রস্তরা হলেন- প্রভাত চন্দ্র, শিরিস চন্দ্র, মিঠু চন্দ্র, যতীশ চন্দ্র, সুশান্ত বর্মণ, কাজল চন্দ্র, মংলু উড়াও, পাতি চন্দ্র, কেশরী মিনজি ও বিপুল কেরকাটা। আগুনে  তাদের ঘরে থাকা নগদ টাকা, পোশাক, আসবাবপত্র, চাল-ডালসহ ১৫ লাখের বেশি টাকার ক্ষতি হয়েছে বলে দাবি করছেন ভুক্তভোগীরা। 

মিঠাপুকুর ফায়ার সার্ভিসের অধিনায়ক কাজল মিয়া জানান, আবাসন প্রকল্পে ৫০টি হিন্দু ও আদিবাসি পরিবারের বসবাস করছিলেন। শনিবার দুপুরে প্রভাত চন্দ্রের ঘরের চুলা থেকে আগুনের সূত্রপাত হয়। মুহূর্তেই চারদিকে আগুনে লেলিহান শিখা ছড়িয়ে পড়ে। খবর পেয়ে শঠিবাড়ী ফায়ার সার্ভিসের দুটি ইউনিট প্রায় একঘন্টা চেষ্টার পর আগুন নিয়ন্ত্রণে আনে। 

এদিকে মিঠাপুকুর উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান জাকির হোসেন সরকার ও ভাইস চেয়ারম্যান নিরঞ্জন মহন্ত ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন। পরে ক্ষতিগ্রস্ত পরিবারের মাঝে নগদ টাকা ও চাল বিতরণ করা হয়।

Place your advertisement here
Place your advertisement here
রংপুর বিভাগের পাঠকপ্রিয় খবর