ব্রেকিং:
চলে গেলেন বাংলা গানের কিংবদন্তি কণ্ঠশিল্পী এন্ড্রু কিশোর। কিছুক্ষণ আগে তিনি রাজশাহীতে মারা গেছেন। দীর্ঘদিন ধরে তিনি ক্যান্সারে ভুগছিলেন। দেশে করোনাভাইরাসে গত ২৪ ঘণ্টায় আরো ৪৪ জনের মৃত্যু হয়েছে। একই সময়ে নতুন করে করোনা আক্রান্ত হয়েছেন আরো ৩ হাজার ২০১ জন। এ নিয়ে দেশে করোনায় মৃতের সংখ্যা বেড়ে ২ হাজার ৯৬ জনে দাঁড়িয়েছে। মোট আক্রান্ত হয়েছেন ১ লাখ ৬৫ হাজার ৬১৮ জনে। করোনা কেড়ে নিল টনি পুরস্কারের জন্য মনোনীত এই ব্রডওয়ে তারকা নিক করদেরো প্রাণ। আজ সোমবার (৬ জুলাই) সকালে অভিনেতার মৃত্যুর খবর নিশ্চিত করেছেন স্ত্রী আম্যান্ডা কলুটস।
  • মঙ্গলবার   ০৭ জুলাই ২০২০ ||

  • আষাঢ় ২২ ১৪২৭

  • || ১৬ জ্বিলকদ ১৪৪১

Find us in facebook
সর্বশেষ:
টেকসই উন্নয়ন প্রতিবেদনে ভারত-পাকিস্থানকে ছাড়িয়ে বাংলাদেশ প্রবাসী কর্মীদের অভিনন্দন জানিয়েছেন প্রবাসী কল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থান মন্ত্রী ইমরান আহমদ কোরবানির আগে চামড়া ব্যবসায়ীদের ঋণের সুযোগ দিল কেন্দ্রীয় ব্যাংক বাংলাদেশে করোনার পিক আওয়ার ছিল জুন আধুনিক বাংলাদেশের রূপকার শেখ হাসিনা
১৫৫

ভাসমান ট্রেন আবিষ্কারে বাংলাদেশি গবেষক ড. আতাউল করিমের সাফল্য

– দৈনিক রংপুর নিউজ ডেস্ক –

প্রকাশিত: ২৪ নভেম্বর ২০১৯  

Find us in facebook

Find us in facebook

ট্রেন ভূমি স্পর্শ করেই চলে, এটা সবারই জানা। কিন্তু বিশ্বকে তাক লাগিয়ে দিলেন বাংলাদেশি গবেষক ড. আতাউল করিম। তিনি এমন একটি নকশা করেছেন, যা চলার সময় ভূমি স্পর্শ করবে না। এরইমধ্যে বিভিন্ন দেশে এই ট্রেন বাণিজ্যিকভাবে তৈরির বিষয়টি ভাবা হচ্ছে।

ড. আতাউল এই প্রকল্পটি শুরু করেন ২০০৪ সালে। এর দেড় বছর পরই ট্রেনটির প্রোটোটাইপ তৈরি করতে সক্ষম হন তিনি। পরের সময়টায় নামকরা বিজ্ঞানীরা মডেলটি পরীক্ষা নিরীক্ষা করে দেখেছেন। কিন্তু কোনো ক্রুটি খুঁজে না পাওয়ায় এটি বাণিজ্যিকভাবে উৎপাদনের সিদ্ধান্ত হয়েছে। এর আগে যুক্তরাষ্ট্রের ওল্ড ড্যামিয়ান ইউনিভার্সিটির গবেষকরা ‘ভাসমান ট্রেন’ নিয়ে গবেষণা করেন, কিন্তু সাত বছরেও কোনো সাফল্য পাননি।

নতুন এই নকশা ট্রেনের প্রচলিত ধারাকে পুরোই পরিবর্তন করে দিয়েছে। নতুন পদ্ধতির গঠনশৈলীও খুবই আকর্ষণীয়। এর প্রধান বৈশিষ্ট্য, এটি চলার সময় ভূমি স্পর্শ করবে না। চুম্বক শক্তিকে কাজে লাগিয়ে চলবে বুলেট ট্রেনের মতো। চীন, জার্মানি, ও জাপানে ১৫০ মাইলের বেশি গতির ট্রেন আবিষ্কৃত হয়েছে। তবে পার্থক্য হচ্ছে, ওই ট্রেনে প্রতি মাইল ট্র্যাক বসানোর জন্য গড়ে খরচ পড়ে ১১ কোটি ডলার। আর ড. আতাউলের আবিষ্কৃত এই ট্রেনে খরচ হবে মাত্র এক কোটি ২০ লাখ থেকে ৩০ লাখ ডলার।

ড. আতাউল করিম ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে পদার্থবিজ্ঞানে উচ্চতর ডিগ্রি নেন। এরপর আমেরিকার অ্যালাবামা ইউনিভার্সিটি থেকে পদার্থ বিজ্ঞানে এমএস, ইলেক্ট্রিক্যাল ইঞ্জিনিয়ারিংয়ে এমএস এবং ইলেক্ট্রিক্যাল ইঞ্জিনিয়ারিংয়ে পিএইচডি ডিগ্রি পান যথাক্রমে ১৯৭৮, ১৯৭৯ এবং ১৯৮১ সালে।

Place your advertisement here
Place your advertisement here
বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিভাগের পাঠকপ্রিয় খবর