ব্রেকিং:
আজ ৬ জুন রংপুর মেডিকেলে ১৮৮ নমুনা পরীক্ষা করে ১৩ জনের করোনা শনাক্ত হয়েছে। বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন রংপুর মেডিকেল কলেজের অধ্যক্ষ ডা. নুরুন্নবী লাইজু। রংপুর ডেডিকেটেড করোনা আইসোলেশন হাসপাতালে করোনায় আক্রান্ত সুলতানা পারভিন (৬৭) নামে আরও এক রোগীর মৃত্যু কুড়িগ্রাম সদর উপজেলার যাত্রাপুর ইউনিয়নে ব্রহ্মপূত্র নদে পড়ে গিয়ে খাদিমুল ইসলাম নামে তিন বছরের এক শিশুর সলিল সমাধি হয়েছে।
  • রোববার   ০৭ জুন ২০২০ ||

  • জ্যৈষ্ঠ ২৩ ১৪২৭

  • || ১৫ শাওয়াল ১৪৪১

Find us in facebook
সর্বশেষ:
বাংলাদেশি সেনাদের নিয়ে গর্ব করা উচিত: জাতিসংঘ মহাসচিব পরীক্ষামূলকভাবে ‘করোনা ট্রেসার বিডি’ অ্যাপ চালু বৈদেশিক মুদ্রার রিজার্ভ ও রেমিট্যান্সে নতুন রেকর্ড ছুঁয়েছে আরও একটি নিম্নচাপ তৈরি হতে চলেছে বঙ্গোপসাগরে শিগগিরই তিন হাজার মেডিকেল টেকনোলজিস্ট নিয়োগ
৪৬

বিষ্ময় সৃষ্টি করেছেন নীলফামারীর প্রতিবন্ধী মিম 

– দৈনিক রংপুর নিউজ ডেস্ক –

প্রকাশিত: ১৩ ফেব্রুয়ারি ২০২০  

Find us in facebook

Find us in facebook

ইনজেকশনের সিরিঞ্জ দিয়ে পানির চাপপ্রয়োগ করে ভেকু মেশিন, ড্রোন, কাগজের ফুলসহ অবিকল যন্ত্র তৈরি করে বিষ্ময় সৃষ্টি করেছেন প্রতিবন্ধী মেহেদী হাসান মিম।
মিম নীলফামারীর ডোমার উপজেলার সোনারায় ইউপির হাজীপাড়া গ্রামের দরিদ্র কৃষক এরশাদুল ইসলামের ছেলে । 

সরেজমিনে গিয়ে জানা যায়, উপজেলার সোনারায় ইউপির হাজীপাড়া গ্রামের দরিদ্র কৃষক এরশাদুল ইসলামের দ্বিতীয় ছেলে মিম জন্ম থেকেই বাক ও শ্রবণ প্রতিবন্ধী। 

প্রতিবন্ধী থাকা সত্বেও তাকে প্রতিবন্ধকতা সৃষ্টি করতে পারেনি। প্রতিবন্ধী মিমের লেখাপড়ায় প্রবল আগ্রহ থাকায় দারিদ্রতার মধ্যেও লেখাপড়া চালিয়ে যেতেন তার বাবা এরশাদুল।

এসএসসি পাশ করে বিজনেস ম্যানেজম্যান্ট কলেজে প্রথম বর্ষে ভর্তি হন মিম। দুই বছর ধরে বিভিন্ন যন্ত্রপাতি দেখে হুবহু যন্ত্রপাতি তৈরি করা, কাগজ দিয়ে মনোমুগ্ধকর ফুল, ড্রোন তৈরি করে বিক্রি করে  লেখাপড়ার খরচসহ দরিদ্র বাবাকে সাহায্য করে যাচ্ছেন। 

সদ্য ইনজেকশনের ৮টি সিরিজ দিয়ে পানির চাপ প্রয়োগ করে ভেকু (স্কোভিটার মেশিন) তৈরি করে এলাকায় চাঞ্চল্য সৃষ্টি করেছেন। প্রতিবন্ধী মিম তার নিজের তৈরি ভেকু মেশিন সর্ব সাধারণের জন্যে প্রদর্শন করে বেড়াচ্ছেন।

মিমের বাবা এরশাদুর ইসলাম জানান, ছেলের নতুনত্ব আবিষ্কারে আমি মুগ্ধ। সরকারের দেয়া প্রতিবন্ধী ভাতা,তার আবিষ্কৃত জিনিসপত্র বিক্রি করে কোনো মতে লেখাপড়ার খরচ চালিয়ে যাচ্ছি। ছেলের প্রতিভাকে কাজে লাগাতে সমাজের বিত্তবানসহ সরকারের সহযোগীতা কামনা করছি।  

Place your advertisement here
Place your advertisement here
রংপুর বিভাগ বিভাগের পাঠকপ্রিয় খবর