ব্রেকিং:
আজ ২৮ মে রংপুর মেডিকেলে কলেজে ১৭৮ নমুনা পরীক্ষা করে ১৪ জন করোনা শনাক্ত। বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন রংপুর মেডিকেল কলেজের অধ্যক্ষ ডা. নুরুন্নবী লাইজু। তিনি জানান, আক্রান্তরা হলেন, রংপুরের কাউনিয়া-২, শালবন-৩, মুলাটোল-১, ধাপ, কাকলি লেন-১, পূর্ব গুপ্তপাড়া-১, মেডিকেল মোড়-১, ধাপ জেল রোড-১, সেনপাড়া-১, সদ্যপূষ্করনী ইউনিয়ন -১, জেলা পুলিশ-১ এবং কুড়িগ্রামের ফুলবাড়ি-১ জন। করোনাভাইরাসের কারণে দুইমাস বন্ধ থাকার পর ভারত থেকে পেঁয়াজ আমদানি শুরু হয়েছে। বৃহস্পতিবার সকালে ভারতের নাসিক থেকে ১৬শ’ মেট্রিক টন পেঁয়াজ নিয়ে দিনাজপুরের হিলি রেলস্টেশনে পৌঁছেছে মালবাহী একটি ট্রেন। এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন হিলি স্থলবন্দরের আমদানিকারক শহীদুল ইসলাম শহীদ। কুড়িগ্রামের উলিপুরে বৌভা‌তের দাওয়াত খে‌য়ে বা‌ড়ি ফেরার প‌থে নৌকাডু‌বির ঘটনায় নি‌খোঁজ চারজ‌নের মর‌দেহ উদ্ধার ক‌রে‌ছে ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্সের কর্মীরা। দেশে গত ২৪ ঘণ্টায় রেকর্ড দুই হাজারের বেশি করোনা রোগী সনাক্ত! মোট আক্রান্ত ৪০ হাজার ছাড়াল।
  • শুক্রবার   ২৯ মে ২০২০ ||

  • জ্যৈষ্ঠ ১৪ ১৪২৭

  • || ০৬ শাওয়াল ১৪৪১

Find us in facebook
সর্বশেষ:
সাধারণ ছুটি বাড়ছে না, স্বাস্থ্যবিধি মেনে ৩১ মে থেকে চলবে অফিস! অবশেষে সীমিত আকারে চালু হচ্ছে গণপরিবহন অফিস খুললেও বয়স্ক-গর্ভবতীদের কর্মস্থলে যেতে হবে না নিরাপদ মাতৃত্ব দিবস আজ ভারত-চীন উত্তেজনার মধ্যেই ভারতে সেনা সম্মেলন শুরু
২৫

বাংলাদেশ ক্রিকেটে একজন সফল অধিনায়ক মাশরাফী 

– দৈনিক রংপুর নিউজ ডেস্ক –

প্রকাশিত: ২০ মে ২০২০  

Find us in facebook

Find us in facebook

বাংলাদেশ ক্রিকেটে সফল অধিনায়ক নড়াইল এক্সপ্রেস মাশরাফী বিন মোর্ত্তজা। মাশরাফী টাইগার ক্রিকেটের একটা নাম, একটা অধিনায়ক, একটা অভিভাবক। টাইগার দলের সকল খেলোয়াড়কে সব সময়ই সমর্থন করছেন, ছায়ার মতো আগলে রেখেছেন দেশের সাবেক এ অধিনায়ক। তার এমন ভালোবাসা আজও ক্রিকেটাররা মনে-প্রাণে স্মরণ করে। সাকিব আল হাসানের মতো বড় তারকা থেকে শুরু করে একালের মোহাম্মদ সাইফউদ্দিন পর্যন্ত সকলেই মাশরাফীর সমর্থন পেয়েছেন।
সম্প্রতি এক লাইভ শো অনুষ্ঠানের শেষদিকে এসে মাশরাফী সম্পর্কে তামিম ইকবাল বলেন, সে সত্যিকারের কিংবদন্তি ও অধিনায়ক। বাংলাদেশ কখনো তার মতো অধিনায়ক পাবে না।

করোনাভাইরাসের কারণে দেশের সকলেই মানসিকভাবে বিধ্বস্ত। এ অবস্থায় বর্তমান ও সাবেক তারকাদের নিয়ে নিজের ফেসুবক পেইজে লাইভ আড্ডা আয়োজন করে আসছেন তামিম। সেই লাইভে সকলেই মাশরাফীর অবদানকে স্বীকার করেন। তামিম তার প্রথম লাইভ শো বাংলাদেশের সাবেক অধিনায়ক ও উইকেটরক্ষক মুশফিকুর রহিমের সঙ্গে করেন।  পাঁচ বছর আগে মুশফিক মুদ্রার উলটো-পিঠ দেখেছিলেন। যখন সাবেক কোচ চন্দিকা হাথুরুসিংহে অন্যের কাছে মুশফিককে নিয়ে অভিযোগ করতেন।
একমাত্র মাশরাফীই ওই সময়, মুশফিকের পাশে ছিলেন এবং তাকে পুরোপুরি সমর্থন করেছিলেন। সে সময় মনে হয়েছিল হাথুরুসিংহে তাকে দল থেকে বাদ দিতে পারেন। কিন্তু আগলে রেখেছেন মাশরাফী। মুশফিক বলেন, কোনো চিন্তা-ভাবনা না করেই মাশরাফী ভাই সবসময়ই ক্রিকেটারদের পাশে দাঁড়ান। তার সেই সাহস আছে এবং সবসময় দলকে অগ্রাধিকার দিয়েছেন।
তামিম বেশ কয়েকবারই বলেছিলেন, তার ক্যারিয়ারের পেছনে মাশরাফীর ভূমিকা কতটুকু। তিনি বলেন, কেউই তার মতো না। কখনো কখনো মনে হয়, তিনি ভিন্ন গ্রহ থেকে এসেছেন। তিনি যেভাবে ভাবেন, যেভাবে একজন খেলোয়াড়ের পাশে দাঁড়ান, তা সত্যিই অসাধারণ। তিনি যদি ভাবেন কারো সম্ভাবনা আছে, তিনি তাকে সমর্থন করা থেকে পিছপা হন না।
ক্যারিয়ারে বিভিন্ন সময়ে মাশরাফীর সমর্থন পেয়েছেন- মনে করছেন বাংলাদেশ দলের আরেক সিনিয়র খেলোয়াড় মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ। ২০১৯ বিশ্বকাপে মাহমুদউল্লাহকে বাদ দেয়ার কথা উঠেছিল, সেখানে হস্তক্ষেপর করেন মাশরাফী। মাহমুদউল্লাহর পক্ষে কথা বলেন তিনি। মাহমুদউল্লাহ বলেন, আমার ক্যারিয়ারের বিভিন্ন সময়ে যখন আমি চাপ অনুভব করেছি, তিনিই (মাশরাফী)একজন, যে আমাকে সবসময়ই বিভিন্ন সমস্যায় সহায়তা করেছেন।
গত বিশ্বকাপে টিম ম্যানেজমেন্টকে তিন নম্বরে ব্যাট করার কথা বলেছিলেন সাকিব।  কিন্তু টিম ম্যানেজমেন্টে সাকিবকে তিন নম্বরে ব্যাটিংয়ে পাঠাতে রাজি ছিল না। এমনকি তামিমও চাননি সাকিব তিন নম্বরে ব্যাট করুক। সকলেই চেয়েছিল, সাকিব মিডল-অর্ডারে ব্যাটিং করুক। একমাত্র মাশরাফীই, সাকিবের ইচ্ছার পক্ষে সমর্থন করেন। টিম ম্যানেজমেন্ট ও খেলোয়াড়দের বিপক্ষে গিয়ে সাকিবকে তিনে ব্যাট করার সাহস দেন ম্যাশ। আর তাতেই ব্যাট হাতে ইতিহাস গড়েন সাকিব।

তিন নম্বরে ব্যাট হাতে নেমে দু’টি সেঞ্চুরি ও পাঁচটি হাফ-সেঞ্চুরিতে ৬০৬ রান করেন সাকিব। গড় ছিল- ৮৬ দশমিক ৫৭। গত বিশ্বকাপে তৃতীয় সর্বোচ্চ রান সংগ্রাহক ছিলেন সাকিব। তামিম বলেন, মাশরাফীই প্রথম চিন্তা করেছিলেন, কোন খেলোয়াড়রা তামিম-মুশফিক-সাকিব ও মাহমুদউল্লাহর স্থান নিতে পারেন। তিনি বলেন, ‘লিটন-সৌম্য-সাইফউদ্দিনের মধ্যে সেই সম্ভাবনা পেয়েছিলেন মাশরাফী ভাই। পুরোপুরিভাবে তাদের সমর্থন দিয়েছিলেন।

লিটন-সৌম্য প্রায়ই বলেন, মাশরাফী কিভাবে সমালোচনা থেকে নিজেকে দূরে রেখেছিলেন। লিটন বলেন, আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে আমার শুরুটা খুবই সাধারণ ছিল। আমার প্রথম ১৭টি ওয়ানডেতে আমি একটিও হাফ-সেঞ্চুরি পাইনি। এমনকি আমার ১০টি ইনিংস ছিল সিঙ্গেল ডিজিটে। আমার সমালোচনা করতে দর্শক ও সমালোচকদের সুযোগ করে দিয়েছিল। এমন কঠিন সময়ে, মাশরাফী ভাই আমার পাশে দাঁড়িয়েছেন এবং টিম ম্যানেজমেন্টকে বাধ্য করেছিলেন, আমাকে দলে রাখতে।

লিটন এখন ওয়ানডে ক্রিকেটে এক ইনিংসে বাংলাদেশের সর্বোচ্চ রানের মালিক। সর্বশেষ সিরিজে জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে ১৭৬ রান করেন তিনি। তাই বর্তমান সিনিয়দের জায়গায় নেয়ার সুযোগ থাকছে লিটনের। 
আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে দুর্দান্ত শুরু করেও, সেটি ধরে রাখতে পারেননি সৌম্য। এখানেও মাশরাফী সমর্থন ও সাহস দিয়েছেন সৌম্যকে। তিনি বলেন, আমি যখন রান করতে ভুলে গিয়েছিলাম, তখন মাশরাফী ভাই আমাকে সমর্থন যোগান। তিনি আামকে অনুপ্রাণিত করেন এবং অবশেষে আমি নিজেকে খুঁজে পেয়েছি।

Place your advertisement here
Place your advertisement here
খেলা বিভাগের পাঠকপ্রিয় খবর