ব্রেকিং:
রংপুর মেডিকেল কলেজের (রমেক) পিসিআর ল্যাবে গত ২৪ ঘণ্টায় ১৮৮টি নমুনা পরীক্ষা করে ৩৫ জনের করোনা শনাক্ত হয়েছে। সোমবার রংপুর মেডিকেল কলেজের (রমেক) অধ্যক্ষ অধ্যাপক ডা. একেএম নুরুন্নবী লাইজু এসব তথ্য নিশ্চিত করে বলেন- রমেকের অণুজীব বিজ্ঞান বিভাগের পিসিআর ল্যাবে ১৮৮ জনের নমুনা পরীক্ষা করা হয়। এতে রংপুরে ২৫ জন, গাইবান্ধায় ৬, কুড়িগ্রামে ২ এবং লালমনিরহাটে ২ জনের নমুনায় করোনা শনাক্ত হয়। দেশে করোনাভাইরাসে গত ২৪ ঘণ্টায় আরো ৩৯ জনের মৃত্যু হয়েছে। এ নিয়ে মোট মারা গেলেন ২ হাজার ৩৯১ জন। এছাড়া নতুন করে আক্রান্ত হয়েছেন ৩ হাজার ৯৯ জন। এ নিয়ে মোট আক্রান্তের সংখ্যা ১ লাখ ৮৬ হাজার ৮৯৪ জন।
  • সোমবার   ১৩ জুলাই ২০২০ ||

  • আষাঢ় ২৯ ১৪২৭

  • || ২২ জ্বিলকদ ১৪৪১

Find us in facebook
সর্বশেষ:
রংপুরে চিকিৎসাধীন অবস্থায় করোনা আক্রান্ত মুক্তিযোদ্ধার মৃত্যু অনুমতি দেয়া পাঁচ বেসরকারি হাসপাতাল ও ডায়াগনস্টিক সেন্টারের কোভিড-১৯ পরীক্ষা স্থগিত রাখার নির্দেশ দিয়েছে স্বাস্থ্য অধিদফতর ২০২০ সালে নিবন্ধিত হজযাত্রীদের জন্য ৮ নির্দেশনা দিয়েছে ধর্ম মন্ত্রণালয় বন্যার সার্বিক পরিস্থিতি সার্বক্ষণিকভাবে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা খোজ খবর নিচ্ছেন-পানিসম্পদ উপমন্ত্রী মানবদেহে কোভিড ভ্যাকসিনের সফল প্রয়োগের দাবি রাশিয়ার!
১৮৫

প্রতিবন্ধী কিশোরী পেল ল্যাপটপসহ ৫০ হাজার টাকা

– দৈনিক রংপুর নিউজ ডেস্ক –

প্রকাশিত: ২৭ নভেম্বর ২০১৯  

Find us in facebook

Find us in facebook

দিনাজপুর পলিটেকনিক ইনস্টিটিউটের শিক্ষার্থী প্রতিবন্ধী মমতাজ আক্তার মুন্নিকে ল্যাপটপ দিয়েছে লোকাল গভর্ন্যান্স সাপোর্ট প্রজেক্ট-৩, এলজিএসপি-৩। সে নীলফামারীর সৈয়দপুর উপজেলার কামারপুকুর ইউনিয়নের বানিয়াপাড়ার মৃত. মোজাম্মেল হকের মেয়ে। আজ বুধবার (২৭ নভেম্বর) জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ের সম্মেলন কক্ষে তার হাতে ল্যাপটপ তুলে দেন জেলা প্রশাসক হাফিজুর রহমান চৌধুরী।

এ সময় স্থানীয় সরকার বিভাগের উপ-পরিচালক আব্দুল মোত্তালেব সরকার, অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) আজাহারুল ইসলাম, অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট মির্জা মুরাদ হাসান বেগ, কামারপুকুর ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান রেজাউল করিম লোকমান বক্তব্য দেন।

আইসঢাল খিয়ারপাড়া আলিম এন্ড ভোকেশনাল মাদরাসা থেকে ২০১৮ সালে জিপিএ-৪.৭৯ পেয়ে এসএসসিতে উত্তীর্ণ হয় মুন্নি। চলতি বছর দিনাজপুর পলিটেকনিক ইনস্টিটিউটে ডিপ্লোমা ইন কম্পিউটার ইঞ্জিনিয়ারিং ভর্তি হয় সে।

ইউনিয়ন চেয়ারম্যান লোকমান হোসেন জানান, জন্মগত সে প্রতিবন্ধী। দুই হাত দিয়ে কিছুই করতে পারে না। দ্বিতীয় শ্রেণিতে পড়াবস্থায় বাবা মারা যায় তার। 

অভাবের সংসারে মাহমুদা বেগম বাড়িতে সেলাই এর কাজ করে সংসার চালান। তিনি বলেন, অনেক চড়াই উৎরাই পেরিয়ে এ পর্যন্ত এসেছে মেয়েটি। ব্যক্তিগত এবং পরিষদের পক্ষ থেকে তার প্রতি সহানুভুতি থাকবে সব সময়। 

মমতাজ আক্তার মুন্নি বলেন, আমি একজন প্রকৌশলী হতে চাই। আমি সাধ্যমত চেষ্টা করে যাচ্ছি। সকলে আমার জন্য দোয়া করবেন।

তিনি বলেন, পড়াশোনার জন্য ল্যাপটপটি খুব জরুরী ছিল। এ জন্য কৃতজ্ঞতা জানাই আমার পাশে দাঁড়ানোর জন্য। এলজিএসপি প্রকল্পের ডিস্ট্রিক্ট ফ্যাসিলেটর আবু হেনা মোস্তফা কামাল বলেন, ইউনিয়ন পরিষদে বরাদ্দ থাকা এলজিএসপির মানব কল্যাল তহবিল থেকে এটির ব্যবস্থা করা হয়েছে। যাতে মেয়েটি শিক্ষাজীবনে এর ব্যবহার করতে পারেন।

মেয়েটির পড়াশোনা চালিয়ে নিতে জেলা প্রশাসক ২০ হাজার, জেলা পরিষদ ২০ হাজার এবং পরিবার পরিকল্পনা বিভাগের উপ-পরিচালক আফরোজা বেগম দশ হাজার টাকা দেয়ার প্রতিশ্রুতি দেন।

জেলা প্রশাসক হাফিজুর রহমান চৌধুরী বলেন, ৫০ হাজার টাকা এফডিআর করে রাখা হবে তার নামে। এখানকার লভ্যাংশ সে কাজে ব্যবহার করবে। এছাড়াও দুর্যোগ সহনীয় একটি ঘর দেয়ার ব্যবস্থা থাকবে জেলা প্রশাসন থেকে।  

Place your advertisement here
Place your advertisement here
নগর জুড়ে বিভাগের পাঠকপ্রিয় খবর