ব্রেকিং:
দিনাজপুরে গত ২৪ ঘণ্টায় ২৩ জন ব্যক্তি করোনা ভাইরাসে (কোভিড-১৯) আক্রান্ত হয়েছেন। এ নিয়ে জেলায় মোট আক্রান্তের সংখ্যা দাঁড়ালো ৩ হাজার ৯৪৪ জনে। মঙ্গলবার বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন দিনাজপুরের সিভিল সার্জন ডাঃ মোঃ আব্দুল কুদ্দুছ। গাইবান্ধার পলাশবাড়ী উপজেলায় জমিজমা সংক্রান্ত বিরোধে বড় ভাই আদম আলীর ধারালো কাচির আঘাতে ছোট ভাই শাপলা মিয়া (৫০) নিহত
  • বুধবার   ২৫ নভেম্বর ২০২০ ||

  • অগ্রাহায়ণ ১০ ১৪২৭

  • || ০৯ রবিউস সানি ১৪৪২

Find us in facebook
সর্বশেষ:
স্বাধীনতার পর সবচেয়ে বড় নির্মাণ অবকাঠামো হলো পদ্মাসেতু পীরগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে বেড়েছে সেবার মান দিনাজপুরে আশার আলো জাগিয়েছে ‘ব্রি ধান ৮৭’ কুড়িগ্রামে বিনামূল্যে সোলার হোম সিস্টেম বিতরণ চার এমওইউ স্বাক্ষর হতে পারে হাসিনা-মোদি ভার্চুয়াল বৈঠকে ৪৩তম বিসিএসে নিয়োগ পাবেন ১৮১৪ জন

তৃণমূলের মতামত উপেক্ষা করেই পৌরসভা নির্বাচনে যাচ্ছে বিএনপি

– দৈনিক রংপুর নিউজ ডেস্ক –

প্রকাশিত: ২১ নভেম্বর ২০২০  

Find us in facebook

Find us in facebook

তৃণমূল নেতা-কর্মীদের আগ্রহ না থাকা সত্ত্বেও স্থানীয় সরকার নির্বাচনে অংশ নিচ্ছে বিএনপি। এ লক্ষ্যে বিভিন্ন পৌরসভা নির্বাচনের জন্য প্রার্থী বাছাই প্রক্রিয়াও শুরু করেছেন দলের শীর্ষ নেতারা। 

তৃণমূলের মতামত নিয়ে বিএনপির মনোনীত প্রার্থী ঠিক করতে স্থানীয় নেতাদের এরই মধ্যে নির্দেশ দেয়া হয়েছে। তবে এতে তৃণমূলের নেই কোনো আগ্রহ।

দেশের ৩২৯টি পৌরসভার মধ্যে ২৫৯টিতে ভোটের আয়োজন করতে আইনগত কোনো বাধা নেই। এসব পৌরসভায় ডিসেম্বর থেকে মার্চ পর্যন্ত চার-পাঁচ ধাপে ভোট করার পরিকল্পনা নিয়েছে নির্বাচন কমিশন (ইসি)। বেশিরভাগ পৌরসভায় ইলেকট্রনিক ভোটিং মেশিনে (ইভিএম) ভোট নেয়া হবে।

গত ৫ নভেম্বর স্থানীয় সরকারের প্রায় একশ প্রতিষ্ঠানে আগামী ১০ ডিসেম্বর ভোট নেয়ার দিন নির্ধারণ করে তফসিল ঘোষণা করে নির্বাচন কমিশন (ইসি)। এর মধ্যে পাঁচটি পৌরসভাও রয়েছে। এছাড়া ডিসেম্বর শেষ দিকে প্রথম দফার সম্ভাব্য ২৫টি পৌরসভা নির্বাচনের ভোট নেয়া হতে পারে। চলতি সপ্তাহে এসব পৌরসভার নির্বাচনের তফসিল ঘোষণার প্রস্তুতি নিচ্ছে ইসি। পৌরসভা নির্বাচনের পর এপ্রিল থেকে ধাপে ধাপে শুরু হবে ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচন।

বিএনপির নেতা-কর্মীরা জানান, নির্বাচন নিয়ে তাদের দলের নেতা-কর্মীদের মধ্যে অনীহা রয়েছে। তবে অনেক এলাকার মনোনয়নপ্রত্যাশীরা শুধু নিজের রাজনৈতিক অবস্থান ধরে রাখতে কিংবা দলীয় নির্দেশনা পালনের জন্য নামকাওয়াস্তে নির্বাচনে অংশ নিতে চাইছেন। আবার এলাকায় দল মনোনয়ন না দিলেও অনেকে নির্বাচন করার ঘোষণা দিয়েছেন। এরই মধ্যে এলাকায় গণসংযোগের মতো কর্মসূচি অনেকেই করছেন। 

বিএনপির জেলা পর্যায়ের বেশ কয়েকজন নেতা জানান, তারা দলের সিদ্ধান্তের বাইরে যেতে পারবেন না বলে নির্বাচনী প্রস্তুতি নিচ্ছেন। তবে তৃণমূলের নেতা-কর্মীরা নির্বাচনে অংশগ্রহণ করতে চাইছেন না।

রাজশাহী বিভাগীয় এক নেতা জানান, পৌরসভায় বিএনপিসহ অন্য দলগুলোর মধ্যে পৌর নির্বাচন নিয়ে কোনো উৎসাহ-উদ্দীপনা নেই। তবে ভোটারদের মধ্যে নির্বাচন নিয়ে আগ্রহ রয়েছে। 

তিনি বলেন, সারাদেশের বিএনপির নেতা-কর্মীদের মধ্যে যে অভ্যন্তরীণ কোন্দল রয়েছে, তাতে করে বর্তমানে কোনো নির্বাচনেই যাওয়া দলের ঠিক হবে না। নির্বাচনের যাওয়ার পূর্বে বিএনপির সাংগঠনিক শৃঙ্খলা ফেরাতে হবে।

বরিশাল বিভাগীয় তৃণমূলের এক নেতা জানান, সর্বশেষ ২০১৫ সালের ৩০ ডিসেম্বর উজিরপুর, বানারীপাড়া, মুলাদী, মেহেন্দীগঞ্জ, গৌরনদী ও বাকেরগঞ্জে পৌর নির্বাচন হয়। সবগুলোতেই মেয়র পদে জয়ী হন আওয়ামী লীগের প্রার্থীরা। এবার উজিরপুরের পৌরনির্বাচনে এখনও নিশ্চুপ রয়েছেন বিএনপির প্রার্থীরা।

তিনি বলেন, সম্প্রতি অনুষ্ঠিত কয়েকটি আসনের উপ-নির্বাচনের ফলাফল পর্যবেক্ষণ করে বোঝা যায়, এই মুহূর্তে ক্ষমতাসীন দলের সঙ্গে প্রতিযোগিতাপূর্ণ নির্বাচন করার অবস্থায় নেই বিএনপি। তাই আগে দলের অবস্থান মজবুত না করে, এসব নির্বাচনে অংশগ্রহণ করা উচিত নয় বলেও মন্তব্য করেন তিনি।

Place your advertisement here
Place your advertisement here