• বুধবার   ১২ আগস্ট ২০২০ ||

  • শ্রাবণ ২৮ ১৪২৭

  • || ২২ জ্বিলহজ্জ ১৪৪১

Find us in facebook
সর্বশেষ:
২০১৯-২০ অর্থবছরে দেশে মাথাপিছু আয় বেড়ে এখন ২০৬৪ ডলার করোনা ভ্যাকসিন উৎপাদনে প্রস্তুত দেশের চার কোম্পানি বন্যায় এ পর্যন্ত ১১,৭৫০ টন চাল বিতরণ করেছে সরকার দেশে ৩০ কোটি মার্কিন ডলার বিনিয়োগ করবে চীনা প্রতিষ্ঠান ঐক্যফ্রন্টের ভূমিকায় বিভক্ত হয়ে পড়েছেন বিএনপি নেতাকর্মীরা
১৪৪

তথ্য কমিশনে বেরোবি ভিসি’র ক্যাম্পাসে প্রায় অনুপস্থিত থাকার অভিযোগ

– দৈনিক রংপুর নিউজ ডেস্ক –

প্রকাশিত: ৩ ডিসেম্বর ২০১৯  

Find us in facebook

Find us in facebook

বেগম রোকেয়া বিশ্ববিদ্যালয়ের (বেরোবি) ভিসি অধ্যাপক ড. নাজমুল আহসান কলিমউল্লাহর বিরুদ্ধে ক্যাম্পাসে প্রায় অনুপস্থিত থাকার অভিযোগ। বিশ্ববিদ্যালয়ের সর্বোচ্চ প্রশাসক হয়ে ক্যাম্পাসে নিয়মিত অনুপস্থিত থাকায় বিশ্ববিদ্যালয়ের একাডেমিক এবং প্রশাসনিক কাজের ব্যত্যয় ঘটছে অভিযোগ শিক্ষক-শিক্ষার্থী কর্মকর্তা কর্মচারীদের। সেই অভিযোগ গেছে এবার তথ্য কমিশনে। সোমবার অভিযোগের বিষয়টি নিয়ে শুনানি থাকলেও বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন সময় নিয়েছে। এজন্য শুনানির তারিখ ১৮ই ডিসেম্বর পর্যন্ত পিছিয়েছে তথ্য কমিশন। 

জানা যায়, তথ্য অধিকার আইনে রংপুরের একটি কলেজের অধ্যক্ষ খন্দকার আবুল হাসনাত ফখরুল আনাম বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনের কাছে জানতে চান, ২০১৮ সালের ১লা জানুয়ারী থেকে চলতি বছরের ৩০শে জুন পর্যন্ত ভিসি মোট কতদিন ছুটি ভোগ করেছেন। তিনি আরো জানতে চান, শিক্ষকদের ছুটির নীতিমালা ও ২০১৮-১৯ইং সেশনে ভর্তি ফি বাবদ কত টাকা আয় এবং এই টাকা কোন কোন খাতে ব্যয় হয়েছে তার তথ্য। বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনের কাছে এর সম্পুর্ন তথ্য না পেয়ে তিনি আবেদন করেন তথ্য কমিশনে।

ফখরুল আনাম বলেন, তথ্য অধিকার আইনে আমি তিনটি তথ্য বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনের কাছে জানতে চাই। কিন্তু তারা ২০ কার্যদিবসে তা আমাকে দেয়া হয়নি।এরপর আমি ভিসির কাছে এটার জন্য আপিল করি। পরে তারা আমাকে আংশিক তথ্য প্রদান করে। তাদের এই আংশিক তথ্যে আমি সন্তুষ্ট না হয়ে তথ্য কমিশনে আবেদন করি। গত সোমবার বিষয়টি নিয়ে শুনানি হওয়ার কথা থাকলেও টাইম পিটিশন দিয়েছে তথ্য কমিশন। এখন ১৮ই ডিসেম্বর এর শুনানি হওয়ার কথা।

শিক্ষক সমিতির সভাপতি গাজী মাজহারুল আনোয়ার বলেন, ভিসির সঙ্গে রেজিস্ট্রারও ক্যাম্পাসে অনুপস্থিত থেকেই যাচ্ছেন। এর প্রতিফলন ঘটছে একাডেমিক এবং প্রশাসনিক কাজে। এব্যাপারে উচ্চ মহলের দৃষ্টি আকর্ষণ করছি।  

লোক-প্রশাসন বিভাগের সহকারি অধ্যাপক আসাদুজ্জামান মন্ডল আসাদ বলেন, ক্যাম্পাসে ভিসির ধারাবাহিক অনুপস্থিতির কারণে বিভিন্ন অনিয়ম সংঘটিত হচ্ছে এবং একটি মহল এটার ফায়দা লুটছেন।

এব্যাপারে ভিসি অধ্যাপক ড. নাজমুল আহসান কলিমউল্লাহর সঙ্গে তার মুঠোফোনে একাধিকবার যোগাযোগের চেষ্টা করা হলেও তিনি কল রিসিভ করেননি।

Place your advertisement here
Place your advertisement here
শিক্ষা বিভাগের পাঠকপ্রিয় খবর