ব্রেকিং:
ভারতের সাবেক মন্ত্রী ও বিজেপি নেতা যশবন্ত সিং মারা গেছেন। হৃদযন্ত্রের ক্রিয়া বন্ধ হয়ে রোববার সকাল ৭টার দিকে দিল্লির আর্মি হাসপাতালে মৃত্যুবরণ করেন সাবেক এই সেনা কর্মকর্তা।
  • রোববার   ২৭ সেপ্টেম্বর ২০২০ ||

  • আশ্বিন ১২ ১৪২৭

  • || ০৯ সফর ১৪৪২

Find us in facebook
সর্বশেষ:
ভ্যাকসিন উৎপাদনের সক্ষমতা বাংলাদেশের রয়েছে- প্রধানমন্ত্রী বাংলাদেশকে ২০ কোটি ডলার ঋণ অনুমোদন দিয়েছে বিশ্বব্যাংক নীলফামারীতে ইউপি চেয়ারম্যানকে হত্যার হুমকির অভিযোগ প্রধানমন্ত্রীর প্রতিটা মুহূর্তই ইতিহাসের অংশ- পলক ‘সার্কভুক্ত দেশগুলোর মধ্যে সহযোগিতা শক্তিশালী করতে হবে’
১৭৩

কর্মহীন হয়ে পড়েছে পীরগাছার শতাধিক আদিবাসী পরিবার   

– দৈনিক রংপুর নিউজ ডেস্ক –

প্রকাশিত: ৩০ মার্চ ২০২০  

Find us in facebook

Find us in facebook

রংপুরের পীরগাছায় শতাধিক আদিবাসী পরিবার কর্ম হীন হয়ে পড়েছে। ফলে পরিবারগুলো খাদ্য সংকটে রয়েছে। সরকারি ও বেসরকারি উদ্যোগে এখন পর্যন্ত তাদের কোনো সহযোগিতা করা হয়নি। অথচ যেকোনো দুর্যোগে সর্বোচ্চ অগ্রাধিকার দিয়ে তাদেরকেই সহযোগিতা করা হয়।

স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, আদিবাসীরা বংশপরম্পরায় খাল, বিল, নদী ও ডোবাসহ বিভিন্ন জলাশয় থেকে কুঁচিয়া সংগ্রহ করে বাজারে বিক্রি করে জীবিকা নির্বাহ করে আসছে। তবে আগে বাজারে কুঁচিয়ার তেমন চাহিদা ছিল না। দামও ছিল কম। বিদেশে রফতানি শুরু হওয়ার পর থেকে কুঁচিয়ার কদর বেড়ে যায়। দামও ভালো পাওয়া যাচ্ছিল। কুঁচিয়া কেনার জন্য উপজেলা কল্যাণী ইউনিয়নের তালুক কল্যাণী গ্রামে গড়ে উঠে আড়ত। স্থানীয় আড়ত থেকে প্রতি সপ্তাহে প্রচুর পরিমাণে কুঁচিয়া বিদেশে রফতানির জন্য ঢাকায় পাঠানো হতো। কিন্তু গত বছরের ডিসেম্বরে চীনে করোনাভাইরাসে সংক্রমণের পর চলতি বছরের জানুয়ারি মাস থেকেই রফতানি বন্ধ হয়ে যায়। স্থানীয় আড়তে আর কুঁচিয়া ক্রয় করা হয় না।

জানা যায়, উপজেলার ইটাকুমারী ইউনিয়নের আদিবাসী পল্লীর প্রায় শতাধিক পরিবার কুঁচিয়া ধরে স্থানীয় আড়তে বিক্রি করে জীবিকা নির্বাহ করে আসছে। আদিবাসীদের সংগ্রহ করা কুঁচিয়া চীন, হংকং, তাইওয়ানসহ বিশ্বের বিভিন্ন দেশে রফতানি হয়ে আসছিল। কিন্তু করোনাভাইরাসের প্রভাবে আদিবাসীদের সংগ্রহ করা কুঁচিয়া রফতানি বন্ধ হয়ে যায়। ফলে পরিবারগুলো চলতি বছরের জানুয়ারি মাস থেকে কর্মহীন হয়ে পড়ে।

আদিবাসী পল্লির কুঁচিয়া শিকারি নিমাই বলেন, ‘করোনাভাইরাসের কারণে আড়তে কুঁচিয়া কেনা বন্ধ রয়েছে। গত আড়াই মাস থেকে বেকার বসে আছি। কোথাও থেকে কোন সহযোগিতাও পাচ্ছি না।’

আদিবাসী শিকারি জানান, ‘কাজ করলে খাবার জোটে, না করলে নাই। কর্ম নেই, তাই কারো কাছে ১০০ টাকা ধার চাইলেও দিবে না।’

আড়তদার আনোয়ার হোসেন বলেন, ‘করোনাভাইরাস সংক্রমণের খবরের পর বিদেশে কুঁচিয়ার চাহিদা নেই, তাই রফতানি বন্ধ রয়েছে। ফলে স্থানীয়ভাবে আদিবাসীদের সংগৃহীত কুঁচিয়া আর ক্রয় করা হচ্ছে না।’

Place your advertisement here
Place your advertisement here
রংপুর বিভাগের পাঠকপ্রিয় খবর