ব্রেকিং:
রংপুর মেডিকেল কলেজের (রমেক) পিসিআর ল্যাবে গত ২৪ ঘণ্টায় ১৮৮টি নমুনা পরীক্ষা করে ৩৫ জনের করোনা শনাক্ত হয়েছে। সোমবার রংপুর মেডিকেল কলেজের (রমেক) অধ্যক্ষ অধ্যাপক ডা. একেএম নুরুন্নবী লাইজু এসব তথ্য নিশ্চিত করে বলেন- রমেকের অণুজীব বিজ্ঞান বিভাগের পিসিআর ল্যাবে ১৮৮ জনের নমুনা পরীক্ষা করা হয়। এতে রংপুরে ২৫ জন, গাইবান্ধায় ৬, কুড়িগ্রামে ২ এবং লালমনিরহাটে ২ জনের নমুনায় করোনা শনাক্ত হয়। দেশে করোনাভাইরাসে গত ২৪ ঘণ্টায় আরো ৩৯ জনের মৃত্যু হয়েছে। এ নিয়ে মোট মারা গেলেন ২ হাজার ৩৯১ জন। এছাড়া নতুন করে আক্রান্ত হয়েছেন ৩ হাজার ৯৯ জন। এ নিয়ে মোট আক্রান্তের সংখ্যা ১ লাখ ৮৬ হাজার ৮৯৪ জন।
  • সোমবার   ১৩ জুলাই ২০২০ ||

  • আষাঢ় ২৯ ১৪২৭

  • || ২২ জ্বিলকদ ১৪৪১

Find us in facebook
সর্বশেষ:
রংপুরে চিকিৎসাধীন অবস্থায় করোনা আক্রান্ত মুক্তিযোদ্ধার মৃত্যু অনুমতি দেয়া পাঁচ বেসরকারি হাসপাতাল ও ডায়াগনস্টিক সেন্টারের কোভিড-১৯ পরীক্ষা স্থগিত রাখার নির্দেশ দিয়েছে স্বাস্থ্য অধিদফতর ২০২০ সালে নিবন্ধিত হজযাত্রীদের জন্য ৮ নির্দেশনা দিয়েছে ধর্ম মন্ত্রণালয় বন্যার সার্বিক পরিস্থিতি সার্বক্ষণিকভাবে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা খোজ খবর নিচ্ছেন-পানিসম্পদ উপমন্ত্রী মানবদেহে কোভিড ভ্যাকসিনের সফল প্রয়োগের দাবি রাশিয়ার!
১৬৫

ইনজুরির কারণে এক সপ্তাহের বিশ্রামে থাকবেন মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ

– দৈনিক রংপুর নিউজ ডেস্ক –

প্রকাশিত: ২৭ নভেম্বর ২০১৯  

Find us in facebook

Find us in facebook

ভারতের বিপক্ষে পূর্ণাঙ্গ সিরিজ খেলে মাত্র এক ম্যাচে জয় পেয়েছে বাংলাদেশ। তবে এ সফরে ইনজুরিতে পড়েছেন দলের কয়েকজন খেলোয়াড়। দিবারাত্রির টেস্টের দ্বিতীয় ইনিংসে ব্যাটিংয়ের সময় হ্যামস্ট্রিংয়ে চোটে পড়েন মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ। উঠে যান মাঠ থেকে। আর মাঠে নামা হয়নি এ ব্যাটসম্যানের। ফলে এক সপ্তাহের বিশ্রামে থাকবেন রিয়াদ।

তৃতীয় দিনে ইনিংস ও ৪৬ রানে হেরে ২-০ তে হোয়াইটওয়াশ হয় টিম টাইগার্স। সেই দিন রাতেই কলকাতা থেকে দেশে ফেরেন মাহমুদউল্লাহ। দেশে ফিরে পরদিন ক্ষতে স্ক্যান করিয়েছেন। কিন্তু সেই স্ক্যান রিপোর্ট এখনো হাতে পায়নি বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের মেডিকেল বিভাগ।

তবে দেশে ফেরার পর মাহমুদউল্লাহর শারীরিক পরিস্থিতি পর্যবেক্ষণ করেছেন বিসিবির প্রধান চিকিৎসক দেবাশীষ চৌধুরী। তার মতে আগামী এক সপ্তাহ রিয়াদকে পূর্ণ বিশ্রামে থাকতে হবে। এ সময়টা তিনি বিশ্রামে না থাকলে আসন্ন বিপিএলে তার অংশ নিতে পারবেন না।

মঙ্গলবার এ বিষয়ে সংবাদ মাধ্যমকে দেবাশীষ চৌধুরী বলেন, মাহমুদউল্লাহর ইনজুরিটা হচ্ছে গ্রেড ওয়ান হ্যামস্ট্রিং ইনজুরি। সে গতকাল স্ক্যান করিয়েছে, এখনো রিপোর্ট হাতে পাইনি। এখানে গুরুত্বপূর্ণ বিষয় হচ্ছে খুব অল্প মাত্রার হ্যামস্ট্রিং হলেও ৭ দিনের বিশ্রাম বেঁধে দেয়া হয়েছে। রেস্ট নেয়ার জন্য রিহ্যাব করার জন্য। ফিট না হয়ে খেলায় ফিরলে আবার ইনজুরিতে পড়ার সম্ভাবনা রয়েছে। একই ইনজুরি ওই জায়গাতে হলে সারতে সময় নেয়। আমাদের প্রধান কাজ হচ্ছে ওর দ্বিতীয় ইনজুরিটা আটকানো। কারণ একই জায়গায় দ্বিতীয়বার চোট পেলে ফিরতে দিগুণ সময় লাগতে পারে।

তিনি আরো বলেন, দ্বিতীয় ইনজুরিতে পড়লে সেরে উঠতে এক মাসের মতো সময় লেগে যায়। আর তৃতীয় বার লাগলে খেলোয়াড়ের ওই মৌসুম মিস করার সম্ভাবনা থাকে। এক্ষেত্রে আমাদের প্রথম এবং প্রধান কাজ হচ্ছে ইনজুরিটা যেন দ্বিতীয়বার না হয় সে ব্যবস্থা করা।

Place your advertisement here
Place your advertisement here
খেলা বিভাগের পাঠকপ্রিয় খবর