ব্রেকিং:
গত ২৪ ঘণ্টায় দেশে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত আরো দুই হাজার ৫২৩ জনকে শনাক্ত করা হয়েছে। যা একদিনের আক্রান্তের পরিসংখ্যানে সর্বোচ্চ। এ নিয়ে শনাক্ত রোগীর সংখ্যা বেড়ে ৪২ হাজার ৮৪৪ জনে দাঁড়িয়েছে।
  • শনিবার   ৩০ মে ২০২০ ||

  • জ্যৈষ্ঠ ১৫ ১৪২৭

  • || ০৭ শাওয়াল ১৪৪১

Find us in facebook
সর্বশেষ:
রোববার থেকে গণপরিবহন চালুর প্রস্তুতি নিচ্ছে মালিক-শ্রমিকরা লিবিয়ায় ২৬ বাংলাদেশি হত্যার ঘটনায় পররাষ্ট্রমন্ত্রীর দুঃখ প্রকাশ টেকনিশিয়ানসহ আরো ৫ হাজার চিকিৎসক নিয়োগ দেবে সরকার ঢাবি ছাত্রলীগ নেতার ৫ম মৃত্যুবার্ষিকী উপলক্ষে রংপুরে দোয়া মাহফিল মানবিকতার উজ্জল দৃষ্টান্ত সৃষ্টি করলেন লালমনিরহাটের এসপি আবিদা
২৪

অগ্নিকান্ডে ক্ষতিগ্রস্ত পরিবারের পাশে দাঁড়ালেন বীরগঞ্জের ইউএনও   

– দৈনিক রংপুর নিউজ ডেস্ক –

প্রকাশিত: ৩১ মার্চ ২০২০  

Find us in facebook

Find us in facebook

দিনাজপুরের বীরগঞ্জ উপজেলার শতগ্রাম ইউনিয়নের রাঙ্গালীপাড়া গ্রামের হজরত আলী কয়েক মাস আগে গর্ভবতী স্ত্রী সহ ২ সন্তানকে রেখে অন্য নারীকে বিয়ে করে ঢাকায় চলে যান। এদিকে সপ্তাহখানিক আগে অগ্নিকান্ডে ক্ষতিগ্রস্ত হয় পরিবারটি। অন্যদিকে করোনা ভাইরাসের জন্য কোনো কাজ না পেয়ে অনাহারে দিন কাটাচ্ছেন শেপালী আক্তার বালী। শতগ্রাম ইউনিয়ন ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক মো. ওয়াসেক ফয়সাল এলিন এ খবর দিলে সোমবার রাত ১০ টার দিকে ত্রাণ সামগ্রীর প্যাকেট নিয়ে বাড়িতে গিয়ে হাজির হন উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো. ইয়ামিন হোসেন।

প্যাকেটটিতে ২০কেজি চাল, ২কেজি সয়াবিন তেল, ২কেজি মসুরের ডাল, ৬কেজি আলু, ২কেজি লবণ, ২টি ডেটল সাবান ও ২টি মাস্ক রয়েছে। অগ্নিকান্ডে ক্ষতিগ্রস্তের জন্য পরবর্তীতে খুব শীঘ্রই ২বান ডেউটিন, ৬ হাজার টাকা ও টয়লেট করে দেওয়া আশ্বাস দেন তিনি। পরে দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ মন্ত্রণালয়ের পক্ষ থেকে শতগ্রাম ইউনিয়নের রাঙ্গালীপাড়া গ্রামে ও বলদিয়াপাড়া গ্রামের ভিক্ষুক, বেকার হয়ে পড়া ভ্যান চালক, বিধবা নারী, প্রতিবন্ধী ব্যক্তি সহ অসহায় গরীব দুঃস্থদের মাঝে ত্রাণ সামগ্রীর প্যাকেট নিয়ে বাড়ি বাড়ি গিয়ে পৌঁছে দেন ইউএনও মো. ইয়ামিন হোসেন।

এসময় উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা: মো. আনোয়ার উল্ল্যাহ, উপজেলা সমাজসেবা কর্মকর্তা মো.সারোয়ার মোর্শেদ, উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন সহকারী প্রকৌশলী মো. মিজানুর রহমান মিজান প্রধান, শতগ্রাম ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান কে এম কুতুবউদ্দিন, শতগ্রাম ইউনিয়ন ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক মো. ওয়াসেক ফয়সাল এলিন, সাংবাদিক মো. তোফাজ্জল হোসেন উপস্থিত ছিলেন।

এর আগে ইউএনও মো. ইয়ামিন হোসেন দুপুর থেকে রাত ১০টা পর্য়ন্ত পৌরসভা, সুজালপুর ইউনিয়নের জগদল বাজার, ভোগনগর ইউনিয়নের কবিরাজহাট, উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের সামনে সহ বিভিন্ন বাজারে অসহায় চা দোকানদের বাড়ি বাড়ি গিয়ে ত্রাণ সামগ্রীর প্যাকেট তুলে দেন। উপজেলার বিভিন্ন বাজারে করোনা ভাইরাস প্রতিরোধে সরকারি সিদ্ধান্তে তাদের কি সমস্যা হচ্ছে, জনসাধারণ সরকারি নির্দেশ ঠিকমতো মেনে চলছে কি না সেই লক্ষ্যে বাজারে আসা জনগণকে সচেতন করা সহ লিফলেট ও মাস্ক বিতরণ করেন। উপজেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে কাঁচাবাজার, মুদি দোকান, সার-বীজের দোকান দুপুর ১টা পর্যন্ত খোলা রাখা ও ঔষধের দোকান ছাড়া দুপুর ১টার পরে সকল দোকান বন্ধ করতে হবে মর্মে দোকানদারদের নির্দেশ প্রদান করা হয়। সেই নির্দেশ অমান্য করে শতগ্রাম ইউনিয়ন পরিষদের পার্শ্বে রাত সাড়ে ৯টা পর্য়ন্ত দোকান চালু রাখার অপরাধে এক দোকানদারকে ৫ হাজার টাকা জরিমানা করেন ইউএনও  ইয়ামিন হোসেন।

Place your advertisement here
Place your advertisement here
রংপুর বিভাগ বিভাগের পাঠকপ্রিয় খবর